Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এই জায়গায় যেতে পারেন বেড়াতে, মনীষীরা হাওয়া বদলের জন্য এখানে যেতেন!

||শুভ্রদীপ চক্রবর্তী||

বিহারের অদূরে অবস্থিত বৈচিত্রময় এক জায়গা শিমুলতলা। বিখ্যাত সব বাঙালিরা হাওয়া বদলের আশায় ঘাঁটি গাড়তেন এই জায়গায়। যার মধ্যে অন্যতম ছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর, সুকুমার রায়, শরৎচন্দ্র, বিভূতিভূষণ, শ্যামল সেন প্রমুখ। তবে তাদের মধ্যে বেশিরভাগ বাড়িই এখন ধ্বংসপ্রাপ্ত নয় কেয়ার টেকারের সঞ্চালনায়। মুগ্ধ বিশুদ্ধ বাতাস আর নির্জনতার এক অপূর্ব মেলবন্ধনঘটে এই জায়গায়। বর্তমান প্রজন্মের কাছে এই জায়গার গুরুত্ব কিছুটা ফিকে হয়ে গেলেও সৌন্দর্যের অহংকারে এখনো এখনো ডেকে আনে বহু ভ্রমণপিপাসু মানুষদের। সত্যি তো মালভূমির এই লালমাটির সোঁদা গন্ধ আর ঝরনার বহমান স্রোত যেন মনে করিয়ে দেয় কল্পনায় আঁকা কোনো অলৌকিক রূপের কথা।

ঘন শাল, পিয়াল, শিমুল, মহুয়ার জঙ্গল, পাহাড়, ঝরনা কি নেই এই জনপদে। বিংশ শতাব্দীতে ধনী বাঙালিরা তাদের আভিজাত্যের নিদর্শন স্বরূপ বিভিন্ন রকম কুঠিবাড়ি এবং বাগানবাড়ি তৈরি করে। জমিদারদের বিশ্রাম ও বিনোদনের ঠিকানা ছিল এই জায়গা। প্রতিরাতে বেজে উঠত নতর্কীর মনমোহিনী ঘুঙুরের শব্দ আর রাজপ্রতাপের উচ্চকণ্ঠের সমাবেশ। শোনা যায়, বাঙালির ধ্যান জ্ঞান তথা প্রিয় পরিচালক সত্যজিৎ রায় এখানে এসেছিলেন কোনো এক সিনেমার শুটিং করতে। তবে সেসব এখন ইতিহাস। এখানে এলে আপনি দেখতে পাবেন বহু ঐতিহাসিক নিদর্শন তেমনই প্রকৃতির নানা উজ্জ্বল আবিষ্কার। রয়েছে ধারারা ফলসের অবিরত জলচ্ছাস রয়েছে লাট্টু পাহাড়ের পাশে আদরে বেড়ে এক সুন্দর রাজবাড়ী। তাছাড়া এখানে রয়েছে নানা মনীষী এবং বিখ্যাত ব্যাক্তিদের বাগান বাড়ি, কুঠির বাড়ি প্রভৃতি।

কিভাবে যাবেন?

হাওড়া বা শিয়ালদহ স্টেশন থেকে এক্সপ্রেস ট্রেন ধরে শিমুলতলা।

থাকার জায়গা হিসেবে ওখানে কিছু রিসোর্ট আছে আর স্থানীয় ঘর ভাড়া নেওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে।