Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বাংলার ভোটভাগ্যে সিবিআই-ইডির তদন্ত রিপোর্ট প্রভাব ফেলবে ?

।। ময়ুখ বসু ।।


একদিনে সিবিআই, অন্যদিকে ইডি। এই দুই জোড়া ফলায় এখন রাজ্য রাজনীতিতে তোলপাড় উঠেছে। কয়লাকাণ্ডে গতকাল তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে তাঁর স্ত্রী রুজিরা ব্যানার্জীকে নোটিশ ধরিয়েছে সিবিআই। একইসঙ্গে নোটিশ ধরানো হয়েছে অভিষেকের শ্যালিকাকেও। রুজিরার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে বেআইনি আর্থিক লেনদেনের অভিযোগে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাইছে সিবিআই। এই ঘটনায় রাজ্যজুড়ে শোরগোল পড়তে না পড়তেই এবারে মেট্রো ডেয়ারি মামলায় রাজ্যের পুর ও নগোরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের বড়ো মেয়ে প্রিয়দর্শিনীকে নোটিশ ধরালো এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি)। এক্ষেত্রেও ব্যাংকে লেনদেনে অসংগতির অভিযোগে তাঁকে তলব করেছে ইডি। জানা গিয়েছে, প্রিয়দর্শিনীর বাড়িতে গিয়েই নোটিশ ধরানো হয়েছে।

ইডি সূত্রে মনে করা হচ্ছে, মেট্রো ডেয়ারির বেশ কিছু হিসাবে কারচুপি সামনে এসেছে। সেক্ষেত্রে প্রিয়দর্শিনীর স্বামী ইয়াসির হায়দার বেশ কয়েকবার বিদেশ গিয়েছিলেন। ফলে ইডি মনে করছে ইয়াসিরের মাধ্যমে ওই টাকা বিদেশে পাচার করা হয়েছে। ফলে প্রিয়দর্শিনীকে তদন্তকারীদের মুখোমুখি বসার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে। একদিকে রুজিরা অন্যদিকে প্রিয়দর্শিনী। সিবিআই আর ইডির নোটিশের মুখে দাঁড়িয়ে এখন রাজ্য রাজনীতি তোলপাড়। দুটি ক্ষেত্রেই এই দুই জন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের দুই হেভিওয়েট নেতার স্ত্রী এবং কন্যা। আর তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠাকে কেন্দ্র করে একুশের নির্বাচনের আগে রাজ্যের শাসক দলের ভাবমূর্তিতে যে প্রভাব পড়তে পারে সেই আশঙ্কার কালো মেঘ দেখা দিতে শুরু করেছে। তৃণমূল বারবার জোরের সঙ্গে অভিযোগ তুলছে, বিজেপি ভোটের ময়দানে পেরে না উঠে তাদের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলিকে লেলিয়ে দিয়েছে।

কিন্ত রাজনৈতিক মহলের মতে, ভোটের ময়দানে রাজনৈতিক হিংসার সম্ভাবনা থাকলেও যদি না কোনও দুর্নীতি থাকে তাহলে কী অযাথা এভাবে নোটিশ ধরানো যায়? সেক্ষেত্রে এই ধরনের নোটিশ ধরানোর ফলে বাংলার মানুষের মধ্যে সন্দেহের উদ্রেগ বাড়ছে। তার উপর রাজ্যের বিরোধীরা যেভাবে শাসকের বিরুদ্ধে ক্রমাগত দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সুর চড়াচ্ছেন সেক্ষেত্রে এই নোটিশ বেশ সমস্যায় ফেলতে পারে তৃণমূলকে। একুশের ভোট প্রচারে তৃণমূল একযোগে স্লোগান তুলেছে খেলা হবে। ফলে বিরোধীরা এবারে কটাক্ষ করতে শুরু করে দিয়েছেন, তাহলে কী আসল খেলা শুরু হয়ে গেলো? অন্যদিকে, বিজেপি ভোট প্রচারে স্লোগান তুলেছে একুশের ভোটে রাজ্যে বদল হবে বদলাও হবে। ফলে তৃণমূলীরা পাল্টা বিজেপিকে বিজেপির স্লোগানে ভর করেই অভিযোগ তুলতে শুরু করে দিয়েছেন, বদলের আগেই বদলার রাজনীতি নিতে শুরু করেছে বিজেপি। মূলত এখন রাজ্য রাজনীতির ময়দানে গত ২৪ ঘন্টাতেই হিরো হয়ে উঠেছে সিবিআই আর ইডি। আর তাঁদের তদন্তের উপর ভর করে বাংলায় ভোট ভাগ্য অনেকটাই নির্ভরশীল হয়ে উঠতে পারে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।