ডিসেম্বরেই কি পদ্ম পাতায় বসবেন শুভেন্দু? কী বলছে রাজনৈতিক অংক? জানুন

।। ময়ুখ বসু ।।

শুভেন্দু অধিকারী কি তাহলে তৃণমূল ছাড়ছেনই? বিজেপিতে যোগ দেওয়া কি শুধুমাত্র তার সময়ের অপেক্ষা? জল্পনা আর রটনায় ভাসছে রাজ্য রাজনীতির আনাচ কানাচ। কয়েকদিন আগে রামনগরের মেগা শো থেকে শুভেন্দু জানিয়ে দিয়েছিলেন, তিনি তৃণমূলেই আছেন। কিন্ত তার মাত্র দুইদিন পর ওই রামনগরে দাড়িয়েই বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয় বর্গীয় জানিয়ে দিলেন, শুভেন্দুর দল ছাড়া শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা।

যে কারনে কৈলাস থেকে শুরু করে বিজেপির অর্জুন সিং এবং লকেট চট্টোপাধ্যায়েরা আগে ভাগেই শুভেন্দুকে বিজেপিতে স্বাগত জানিয়ে রেখেছেন। এদিকে বঙ্গ রাজনীতির হাওয়ায় ইতিমধ্যেই গুঞ্জন ভাসতে শুরু করেছে, শুভেন্দু অধিকারী ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ দিল্লিতে গিয়ে যোগ দিতে চলেছেন বিজেপিতে। আর তারপরেই অমিত শাহের সঙ্গে তিনি বাংলার মাটিতে পা রাখবেন। ফলে শুভেন্দুকে পদ্ম পাতায় বসাতে বিজেপি চেষ্টার কসুর করছে না এখন থেকেই।

বিজেপি নেতারা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এতো অপমান সহ্য করে শুভেন্দু অধিকারীর আর তৃণমূলে থাকা উচিত নয়। এদিকে তৃণমূলও শুভেন্দুর বিষয়টি শক্ত হাতে মোকাবিলা করতে ময়দানে নেমে পড়েছে। তৃণমূলের একাংশ মনে করছেন, শুভেন্দু দলে থেকে দলবিরোধী অবস্থান বজায় রাখলে তাকে দল থেকে বের করে দেওয়া উচিত। অন্যদিকে, বিজেপির তরফে ব্যাখ্যা দেওয়া হচ্ছে, শুভেন্দু যে অবস্থান বজায় রেখেছেন তার ফলে আগামী দিনে মন্ত্রী হিসাবে শুভেন্দুর হাত থেকে দফতর কেড়ে নেওয়া হতে পারে।

আরো পড়ুন : ‘চলুন মাস্টারমশাই ঘুরি বাড়ি বাড়ি’, একুশের লক্ষ্যে নয়া পরিকল্পনা তৃণমূলের

শুভেন্দুর হাত থেকে পর্যদ বা নিগমের দায়িত্বও কেড়ে নেওয়া হতে পারে। এদিকে বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয় বর্গীয় জোরের সঙ্গে দাবি করে বলেছেন, দিদি এখন আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন। দল পরিচালনার দায়িত্ব এখন বহিরাগত এক সংস্থাকে দেওয়া হয়েছে। তৃণমূল এখন দিদির পার্টি নয়। তৃণমূল মুকুলদার নয়। তৃণমূল শুভেন্দু অধিকারীরও নয়। মুকুলদা বিদায় নিয়েছেন তৃণমূল থেকে এবার শুভেন্দু অধিকারীও বিদায় নেবেন। ফলে শুভেন্দু অধিকারীরের বিজেপিতে যোগের সম্ভাবনা ক্রমশ উজ্জ্বল হচ্ছে।

রাজ্য রাজনৈতিক মহল মনে করছেন, শুভেন্দু এখনই তৃণমূল ছাড়বেন না। তার কারন, তিনি এখন তৃণমূল ছাড়লে তার উপর প্রশাসনকে লেলিয়ে দেওয়া হতে পারে। মিথ্যে কেসে ফাসানো হতে পারে তাকে। যেটা এখন থেকেই শুভেন্দুর অনুগামীদের উপর করা হচ্ছে বলে অভিযোগ। ফলে বুদ্ধিদীপ্ত শুভেন্দু সেই পথ সহজেই মাড়াতে চাইবেন না। সেই কারনে তিনি সময় পার করে হয়তো নির্বাচনের ঠিক মুখে যখন প্রশাসনিক ক্ষমতা নির্বাচন কমিশনের হাতে চলে যাবে ঠিক সেই সময়েই পদ্ম পাতায় আসীন হবেন।

Categories