স্বাধীনতা দিবস বাঙালির জন্য কেন স্পেশাল?কী জানালেন দেবাংশু

1 min read

।। প্রিয়াঙ্কা রায় ।।

আজ ১৫ই আগস্ট। ভারত জুড়ে পালিত হচ্ছে ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস। তবে এবছর করোনা ভাইরাসের কারণে স্বাধীনতা দিবসও কড়া বিধিনিষেধ মেনেই পালিত হচ্ছে। সবরকম বিধি মেনেই এদিন দিল্লির লালকেল্লায় প্রধানমন্ত্রী ও কলকাতার রেড রোডে মুখ্যমন্ত্রী পতাকা উত্তোলন করেন।

এদিন স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা সহ স্বাধীনতা দিবস প্রসঙ্গে নানা তথ্যে ভরা একটি ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট করেন দেবাংশু ভট্টাচার্য। তিনি ক্যাপশন দিয়ে লেখেনে, “ স্বাধীনতা দিবস বাঙালির জন্য কেন একটু স্পেশাল? দেখুন ও শপথ নিন”

“শুভ স্বাধীনতা দিবস। গোটা দেশ সহ রাজ্যে সারম্বরে পালিত হয়েছে স্বাধীনতা দিবস। করানার জেরে একটু ডিস্ট্যান্স মানতে হচ্ছে। তবে আগাগোড়া ৭৩ বছর ধরে আমরা এই দিনটি উদযাপন করে আসছি। বাঙ্গালির কাছে এই দিনটি আবেগের। কারণ বাংলা স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে পরবর্তী ৭৩ বছর গোটা দেশকে যা কন্ট্রিবিউট করে গেছে অন্য অনেক রাজ্য তা করেনি। আজকে স্বাধীনতার কথায় যদি আপনাদেরকে বলি আন্দামান নিকোবর সেলুলার জেলে প্রায় ৫৮৫ জন বন্দী আটকে ছিলেন ব্রিটিশদের হাতে। আপনারা কি জানেন সেই ৫৮৫ জন এর মধ্যে ৩৯৮ জনই বাঙালি ছিলেন। হ্যাঁ আজকের দিনে ভাবতে বুকটা গর্বে ফুলে ওঠে কেন জানেন?

আপনি খোঁজ নিয়ে দেখুন আপনার পূর্বপুরুষ আপনার বাবা,কাকা, দাদা তার দাদু কোন না কোনভাবে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের সাথে জড়িত ছিল। বাঙালির ঘরে ঘরে স্বাধীনতা সংগ্রামীরা জন্ম নিয়েছিল এবং দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছিল। নেতাজি শুধুমাত্র একটা উদাহরণ নয় নেতাজি গোটা পৃথিবীর কাছে আজ একটা আদর্শ।বিনয়-বাদল-দীনেশ, মাস্টারদা সূর্যসেন, মাতঙ্গিনী হাজরা থেকে শুরু করে ক্ষুদিরাম বসু যে কি না ব্রিটিশদের গাড়িতে বোম মারার পর ফাঁসির মঞ্চে উঠে বলেছিলেন বেশ করেছি বোম মেরেছে – সেই বাঙালি জাতি আমরা।“

এভাবেই দেবাংশু ভট্টাচার্য আজ ভারতবর্ষ সম্পর্কে আরও নানা তথ্য তুলে ধরে সকল দেশ সহ রাজ্যবাসীর কাছে। তিনি এদিন বিরোধীদের উল্লেখ করেও নানা কথা বলেন। তিনি বলেন ” খারাপ লাগে যখন দিলীপ ঘোষের মতো কিছু নেতা নন বেঙ্গলিদের সভায় দাঁড়িয়ে বাঙালি কে উদ্দেশ্য করে বলেন, এই বাঙ্গালী তো দেশদ্রোহী দের ঘর।

আরও খারাপ লাগে যখন অন্য রাজ্যের নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন আমি চিরে খেতে দেখে বুঝে গেছি তারা বাংলার অনুপ্রবেশকারী অথচ তিনি জানেন না এই বাঙালিরা সরস্বতি পুজোয় দধিকর্মা খায়, যার আসল উপকরন হল চিরে।”তিনি বলেন “পতাকা হাতে নিয়ে আজ শপথ নিন এই বাংলার মাটিতে দাঁড়িয়ে যারা বাঙালি কে অপমান করবে তাদের আমরা বুঝে নেব, তাদের আমার জবাব দেবো।” এভাবেই আরও বহু শপথ নিয়ে আজ স্বাধীনতা দিবসের দিনে গর্জে উঠেছেন দেবাংশু ভট্টাচার্য।