পশ্চিমবঙ্গ সরকার অপরাধ করলে চেপে রাখে, উত্তরপ্রদেশ সরকার এনকাউন্টার করে: সায়ন্তন বসু

।।রাজীব ঘোষ।।প্রথম কলকাতা।।

উত্তরপ্রদেশের সমস্ত ঘটনাই দুর্ভাগ্যজনক। নিন্দা করার ভাষা নেই। সরকারের উচিত অপরাধীদের কড়া শাস্তি দেওয়া। প্রথম কলকাতার সঙ্গে সাক্ষাৎকারে এই কথা বললেন বিজেপির নেতা সায়ন্তন বসু। তিনি সেখানে আরো বলেন উত্তরপ্রদেশের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের পার্থক্য আছে। এই রাজ্যে অপরাধীদের রাজনৈতিক প্রশ্রয় দেওয়া হয়। উত্তরপ্রদেশের সেটা হয় না। সেখানকার এক বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এই রাজ্যে পুলিশ অপরাধীদের প্রশ্রয় দেয় অপরাধীরা রাজনৈতিক প্রশ্রয় পায়। তাই বিজেপি ক্ষমতায় এলে রাজ্যের মহিলাদের সুরক্ষিত করা হবে, সমস্ত অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। উত্তরপ্রদেশে অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়, এমনকি এনকাউন্টার হয়। পশ্চিমবঙ্গে রোগের মতো অপরাধীদের চেপে রাখে। অপরাধীদের প্রশ্রয় দেওয়া হয়। তাই পরিবর্তন হলে অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। এরপর এক প্রশ্নের উত্তরে সায়ন্তন বলেন পশ্চিমবঙ্গে প্রচুর পরিমাণে আলু উৎপাদন হয়। কৃষকরা আলু বিক্রি করেন ৫ টাকা থেকে ৬ টাকায়। কলকাতার বাজারে সেই আলু বিক্রি হয়েছে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়। মাঝখানের ৪০ টাকা মধ্যস্বত্বভোগীরা নিয়ে নেন। সেই টাকার একটা অংশ তৃণমূলের পার্টি ফান্ডে যায়। তৃণমূলের এই মুহূর্তে চিটফান্ডের টাকা বন্ধ, কাটমানির টাকা বন্ধ, চাকরি দেওয়ার নামে যে টাকা তোলা হয় সেটা বন্ধ হয়ে রয়েছে, তাই এখন এই ফড়ে এবং দালালদের টাকা তারা পার্টি ফান্ডে নেয়। কৃষি বিল হওয়ার ফলে কৃষকরা তাদের ফসল স্বাধীনভাবে যে কোনো বাজারে গিয়ে বিক্রি করতে পারবেন। তৃণমূলের এই টাকা বন্ধ হয়ে যাবে। মুখ্যমন্ত্রী শুধু ঘোষণা করেন এখন তিনি ঘোষিকা হয়েছেন। একটার পর একটা প্রকল্পের ঘোষণা করে দেন কোনোটাই বাস্তবায়িত হয়নি। উত্তরবঙ্গ সুইজারল‍্যান্ড করবেন বলেছিলেন সেটা করতে পারেননি। বিভিন্ন প্রকল্পের তিনি শুধু ঘোষণা করে দেবেন, কাজটা করব আমরা। আর কিছুদিন রয়েছে তার পরেই আমরা ক্ষমতায় এসে সমস্ত কাজ করব। মানুষ তৃণমূলের সঙ্গে নেই পরিবর্তন করতে চাইছেন। মানুষ যে পরিবর্তনের চিন্তা করে তৃণমূলকে ক্ষমতায় এনেছিল রাজ্যে তা হয়নি। তাই ফের পরিবর্তন করতে চাইছেন। রাজ্যে শিল্পের পুনরুজ্জীবন করতে হবে। বিজেপি ক্ষমতায় এসে সেই রোডম্যাপ তৈরি করবে। প্রথম কলকাতায় সাক্ষাৎকারে এই কথা জানালেন সায়ন্তন বসু।