Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে কী মন্ত্র দিলেন অভিষেক? জানুন

1 min read


।। ময়ুখ বসু ।।


উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে তৃণমূল সংগঠনকে আরও চাঙ্গা করার বার্তা দিলেন যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) । মূলত উত্তরবঙ্গে সাংগাঠনিক শক্তির উপরেই ভর করে বিজেপিকে টক্কর নিতে চাইছেন অভিষেক। সেইমতো উত্তরবঙ্গ দখলের নকশা তৈরি করে দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। জানা গিয়েছে, উত্তরবঙ্গের শহরাঞ্চল থেকে গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি বুথ স্তরকে শক্তিশালী করার বার্তা দেন তিনি। উল্লেখ্য, উত্তরবঙ্গ জুড়ে গত লোকসভা নির্বাচনে যথেষ্ট ভালো ফল করেছিলো বিজেপি (bjp)। ফলে স্বাভাবিকভাবেই উত্তরবঙ্গকে এবারেও পাখির চোখ করে নিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব।

রাজ্য বিজেপির আশা, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে শুধুমাত্র উত্তরবঙ্গ থেকেই সিংহভাগ আসন দখলে নেবে গেরুয়া শিবির। সেইমতো গেরুয়া শিবিরের নেতা নেত্রীরা উত্তরবঙ্গ প্রচারে ঝাঁপাতে শুরু করে দিয়েছেন ইতিমধ্যেই। আর এই পরিস্থিতিতে উত্তরবঙ্গের মাটিতে নিজেদের শক্তিকে সংগঠিত করতে এবার মরিয়া প্রয়াস চালাতে শুরু করেছে তৃণমূলও। ইতিমধ্যেই চারদিনের সফরে উত্তরবঙ্গে পৌঁছে গিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সঙ্গে রয়েছেন ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরও। মূলত এই সফরের মাধ্যমে তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) উত্তরবঙ্গে তৃণমূলের ফাক ফোকরকে ভরাট করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের রূপরেখা তৈরি করার পরিকল্পনা নিয়েছেন।

আরো পড়ুন : এই মূহুর্তে নির্বাচন হলে ২ লাখ ৭০ হাজার ভোটে হারবে নিশীথ প্রামানিক স্পষ্ট হিসেব দেবাংশুর

তিনি চাইছেন, জোটবদ্ধ সংগঠন, বুথ স্তরের শক্তি বৃদ্ধি এবং প্রচারের ধার বাড়িয়ে একুশের বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের মাটিতে গেরুয়া শিবিরকে কুপোকাত করতে। সেই লক্ষ্যেই গতকাল মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ারে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃত্বের সঙ্গে রীতিমতো ম্যারাথন বৈঠক করেন অভিষেক। মূলত উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলার জেলা কমিটি, বিধানসভা ভিত্তিক কমিটি, এবং চা বাগানের শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে আলাদা আলাদাভাবে বৈঠক করেন অভিষেক। জানা গিয়েছে, মূলত প্রতিটি বৈঠকে দলের বুথস্তরের সংগঠনকে শক্তিশালী করার উপরেই সবথেকে বেশি জোর দেন তিনি।

পাশাপাশি, রাজ্য সরকারের যে সমস্ত সুবিধাগুলি ইতিমধ্যে সাধারন মানুষ পাচ্ছেন সেই সুবিধাগুলি যাতে আরও বেশী করে মানুষ পান এবং ওই সমস্ত সরকারি প্রকল্পগুলির প্রচার যাতে আরও বেশি বেশি করে করা যায় তার নির্দেশও দেন তিনি। একইসঙ্গে উত্তরবঙ্গের চা বাগানের তৃণমূলের শ্রমিক নেতাদের নির্দেশ দেন, এখন থেকে প্রায়শই ছোট ছোট বৈঠক করে জন সংযোগের মাত্রা বাড়ানোর জন্য। সেইসঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় চা শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির ইঙ্গিত দেন বলেও জানা গিয়েছে। পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের বিধানসভা ভিত্তিক দলীয় কোন্দল মেটানোরও নির্দেশ দেন তিনি। একইসঙ্গে জেলা থেকে বুথ স্তরের সমস্ত কমিটিকেই সাতদিন অন্তর অন্তর বৈঠক করার নির্দেশ দেন। মূলত, দলকে ঐক্যবদ্ধভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ার মন্ত্র দেন অভিষেক।