Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

যাঁরা মমতাকে পছন্দ করেন না তাঁদের কি বলবো? মৃদু হাসি হেসে জয়া বললেন ‘লজ্জা লজ্জা’!

।। সুদীপা সরকার ।।

বাংলা নিজের মেয়েকে চায় স্লোগানকে সামনে রেখে প্রচারে ঝড় তুলছে তৃণমূল।এবার এই স্লোগানকে সামনে রেখে ভোট প্রচারে এসেছেন জয়া বচ্চন। তৃণমূল ভবনে একটি সাংবাদিক বৈঠক করা হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দোলা সেন, পূর্ণেন্দু বসু।

তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে জয়া বচ্চনকে সংবর্ধনা জানানো হয়। জয়া বচ্চন বলেন, আমি বাংলায় এসেছি তৃণমূলের হয়ে প্রচার করতে কোনো অভিনয় করতে আসেনি। আমার দলের নেতা অখিলেশ যাদব তৃণমূলকে সমর্থন করেছে। মমতার প্রতি আমার সম্মান ভালোবাসা আছে। মমতা একনয়াতন্ত্রের বিরুদ্ধে লড়ছেন।

সাংবাদিক বৈঠক থেকে জয়া বচ্চন বলেন, আমাকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য মমতা ব্যানার্জিকে আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি। মমতা ব্যানার্জির পা ভাঙতে পারে কিন্তু তাঁর হৃদয় ভাঙেনি। আমি বিশ্বাস করি মমতা ব্যানার্জি যে কাজটা করবেন বলেন তা উনি পূরণ করেন। পাশাপাশি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে জয় বাচ্চান বলেন আপনারা সত্য কথা লিখুন।

বস যা বলবে তা করলে চলবে না। বাঙালীদের ভয় দেখিয়ে কেও সফলতা পায়নি।আজ সাংবাদিক বৈঠক থেকে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানের দুটি লাইন তুলে ধরেন জয়া বচ্চন। তিনি বলেন আমি প্লান করে কিছু বলি না। উল্লেখ্য এবারের নির্বাচনে প্রচারে ঝড় তুলতে চাইছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই মিঠুন চক্রবর্তীকে সঙ্গে নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় প্রচার চালিয়েছে বিজেপি।

এবার টেক্কা দিতে চলেছে তৃণমূলও। বাংলার ধন্যি মেয়ে 8ই এপ্রিল পর্যন্ত থাকবেন রাজ্যে।অরূপ বিশ্বাসের হয়ে প্রচার তিনি যেমন চালাবেন তেমন অন্যান্য জায়গাতেও তৃণমূলের সমর্থনে প্রচার চালাবেন জয়া বচ্চন। তিনি গতকালই কলকাতায় এসেছেন।তবে জয়া বচ্চনকে নিয়ে তৃণমূলের প্রচার চালানোর বিষয়কে ইতিমধ্যেই কটাক্ষ করতে শুরু করে দিয়েছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব থেকে শুরু করে রাজ্য নেতৃত্ব।

জয়া বচ্চন বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও একবার মুখ্যমন্ত্রী হলে আরও বেশি বেশি উন্নতি হবে বাংলায়। রাজ্যবাসীর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে একাই লড়াই করে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মহিলাদের জন্য সব থেকে নিরাপদ রাজ্য হল এই পশ্চিমবঙ্গ। মমতাকে যারা পছন্দ করেন না তাদেরকে বলব লজ্জা লজ্জা।