Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

তাঁর গাড়িতে হামলার পর সাংবাদিক সম্মেলনে কী বললেন দিলীপ ঘোষ

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

শীতলকুচিতে প্রচার সেরে ফেরার পথে আক্রান্ত হন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি অভিযোগ তুলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা থেকে ফেরার পথে তৃণমূলের কর্মীরা তৃণমূলের পতাকা নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। ব্যাপক বোমাবাজি হয় বলে অভিযোগ তোলেন তিনি। এ ঘটনা ঘটার পর তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একটি বৈঠক করেন। দিলীপ ঘোষ অভিযোগ তোলেন কোচবিহার শীতলকুচি নাটাবাড়ি দিনহাটা সন্ত্রাসের জন্য বিখ্যাত।

মানুষ ওখানকার নেতাদের পছন্দ করছে না লোকসভা ভোটে ভোট দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন। দিলীপ ঘোষ অভিযোগ তোলেন টিএমসি সরকার আবার দুষ্কৃতীদের সামনে নিয়ে এসেছে। মানুষকে ভয় দেখিয়ে ভোট করানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। তিনি জানান আজকে যখন তাদের সভা শেষের দিকে তখন মমতা ব্যানার্জি সভা থেকে তৃণমূলের কর্মীরা ফিরছিলেন। তৃণমূলের কর্মীরা তাদের কর্মীদের দেখে স্লোগান দিয়েছিলেন এবং চমকাচ্ছিলেন ছিলেন। দিলীপ ঘোষ বলেন আমাদের লোকেরাও তেড়ে যান উত্তেজিত হয়ে।

আরো পড়ুন : দলে আছে ‘গদ্দার’নিজের বক্তব্যেই যেন আভাস মমতার

পুলিশ তারপর লাঠিচার্জ করে। দিলীপ বলেন, আমি নিজে গিয়ে কর্মীদের বলি বাড়ি চলে যান। পুলিশ এসে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু হঠাৎ ১০০ থেকে ১৫০ লোক ছুটে এসে আমাদের তারা করে। আমি দেখছি তো ইঁট বৃষ্টি হচ্ছে বোম পড়ছে। তখন আমার নিরাপত্তারক্ষীরা বলেন এখানে থাকা ঠিক হবে না তখন গাড়ি নিয়ে আমরা বেরিয়ে আসি। টিএমসির লুঙ্গী বাহিনি ঝান্ডা নিয়ে গাড়িতে আক্রমণ চালায়। গাড়ি গুলিতে বোম পারে বলে অভিযোগ তোলেন দিলীপ ঘোষ।

তিনি বলেন পুলিশের কোনো সহযোগিতা তারা পায়নি। নির্বাচন কমিশনের কোনো উপস্থিতি দেখতে পাননি। ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। আইন-শৃঙ্খলা কোথায় আছে প্রশ্ন তোলেন দিলীপ ঘোষ। সমগ্র ঘটনার পেছনে মমতা ব্যানার্জির উস্কানি আছে বলে অভিযোগ তোলেন তিনি।তিনি বলেন উনি বুঝতে পেরেছেন যে তার কোন চান্স নেই তাই বাংলার সর্বনাশ করছে হিন্দু-মুসলিম বিভেদ তৈরি করছে। অবিলম্বে মমতা ব্যানার্জীর ভাষণ বন্ধ করে দিতে হবে বলে দাবি তোলেন দিলীপ ঘোষ।

তিনি বলেন নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন করব ওই জায়গাগুলোতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর পেট্রোলিং হওয়া উচিত এবং স্থানীয় গুন্ডাদের জেলে ঢোকাতে হবে। আগামীকাল কোচবিহারের সমস্ত বিধানসভার প্রার্থীদের নেতৃত্বে থানার সামনে আমাদের কার্য কর্তারা বিক্ষোভ দেখাবে বলে সাংবাদিক বৈঠক থেকে ঘোষণা করেন সায়ন্তন বসু।

পিসিসি