Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বাঁচতে হবে স্বামীজীর আদর্শে, মুসলিম প্রতিবন্ধী যুবক আসিফ যা করেছেন তা জেনে অবাক হচ্ছেন সবাই!

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

সারা বিশ্বকে ভাতৃত্বের পাঠ শিখিয়েছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ( Swami Vivekananda)। মানতেন না জাত ধর্ম বর্ণের প্রথা। তাঁর মন ছিল উদার। জাতপাতের সংকীর্ণতার কোন স্থানে ছিল না তাঁর কাছে। পথচলতি মানুষদের এই শিক্ষায় তিনি দিতেন। ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এই বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য ধারাকে আজ বজায় রাখেন কোচবিহারের এক প্রতিবন্ধী মুসলিম যুবক।এক মুসলিম পরিবারে প্রতিবন্ধী যুবক আসিফ ইকবাল জাতপাত খুনোখুনির যন্ত্রণা কে দূরে সরিয়ে স্বামীজীর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে এগিয়ে এলেন তার মত করে, কিছু প্রতিবন্ধী মানুষের স্বার্থে ।বছর পঁচিশের আসিফ জন্ম থেকেই প্রতিবন্ধী। শুটকা বাড়ি মাদ্রাসা থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আসিফ। স্বামীজীর বাণী ও তার খুব প্রিয়। ছোটবেলা থেকেই স্বামীজি তাঁর খুব পছন্দের মানুষ।

প্রতিবছরই স্বামীজির জন্মদিন একটু অন্যভাবে পালন করেন ওই প্রতিবন্ধী যুবক।স্বামীজির জন্মদিনে জাতপাত কে দূরে সরিয়ে রেখে বেশ কিছু প্রতিবন্ধী মানুষকে সাহায্য করার সংকল্প গ্রহণ করেছেন ওই যুবক।মঙ্গলবার স্বামীজীর জন্ম দিবস উপলক্ষে এলাকার বেশ কিছু গরীব দুস্থ প্রতিবন্ধী মানুষের হাতে তুলে দিলেন হুইল চেয়ার।সারা বছর তিনি যে হাত খরচা পান তা জমিয়ে তার মতো করে অন্য কাউকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন ২৫ বছরের ওই প্রতিবন্ধী যুবক। ওই যুবকের বাবা আরাফাত আলী বলেন আমার ছেলে আসিফ জন্ম থেকেই প্রতিবন্ধী ঠিকমত কথা বলতে পারেনা। হুইল চেয়ারে বসেই তাকে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করতে হয়। ছোটবেলা থেকেই স্বামীজীর আদর্শ তাকে প্রতি মুহূর্তে অনুপ্রাণিত করেছে। বেঁচে থাকার রসদ যুগিয়েছে।

আরো পড়ুন : “বাংলার গর্ব এনারাই ” যুবকরা দলে দলে আসুন, কেন আহ্বান সৌমিত্রের?

সেই কারণেই স্বামী বিবেকানন্দের( Swami Vivekananda) জন্মদিনের দিন তারই মত আরও কিছু মানুষকে স্বামীজীর আদর্শে অনুপ্রাণিত করার চেষ্টা করে আসিফ। তাকে উৎসাহ দিতে পাড়া প্রতিবেশীদের সাথে সাথে এই মহৎ প্রয়াস এর অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকেন জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা এছাড়া উপস্থিত থাকেন সব ধর্মের মানুষেরা। স্বামীজি বলেছিলেন ধর্ম বাক্যড়ম্বর নহে, মতবাদ বিশেষ নহে সাম্প্রদায়িকতা নহে। ধর্ম আত্মার শহীদ পরমাত্মার সম্বন্ধে লইয়া। মন্দির, চার্চ নির্মাণ অথবা সমবেত উপাসনায় ধর্ম হয় না কোন গ্রন্থে বচনে অনুষ্ঠানে বা সমিতিতে ধর্ম পাওয়া যায় না। আসল কথা হৃদয়ের পবিত্র ও অস্পষ্ট প্রেম ই ধর্ম। আর সেই কাজই আজ ওই ২৫ বছরের মুসলিম যুবক তিনি করে দেখালেন।

তিনি নিজে মুসলিম হলেও সাহায্যের হাত কিন্তু ভিন্ন ধর্মের মানুষের দিকেই বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমাদের সমাজে একদিকে চলছে জাতপাতের রাজনীতি অন্যদিকে চলছে ভয়ঙ্কর ধর্ম নিয়ে রাজনীতি। তা অপ্রতিরোধ্য। ব্যক্তিগত ভেদাভেদ ভুলে সমাজের কল্যাণে মানুষক মানুষের জন্যই তৈরি আজ তা সকল কে দেখিয়ে দিলেন আসিফ।স্বামীজীর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে নিজে ভিন্ন ধর্মের মানুষ হয়েও মানুষের আসল পরিচয় যে সে মানুষ পারস্পরিক ভেদাভেদ ভুলে হিন্দু ধর্মের মানুষদের জন্য নিজেকে নিয়োজিত করলেন সেবায় আসিফ। আসিফ ইকবাল নিজে প্রতিবন্ধী হলেও আজ তিনি বুঝিয়ে দিলেন ভুলতে হবে বৈষম্য একে অপরের মাঝে সম্প্রীতির মেলবন্ধন ভেদাভেদ ভুলে সাহায্যের জন্য এগিয়ে এলে তবেই সমাজে এগোবে তবে দেশ এগোবে।