গনতন্ত্রে বিরুদ্ধ স্বরকে দমিয়ে রাখা যায় না, পর্যবেক্ষণ সুপ্রিম কোর্টের

।। রাজীব ঘোষ ।।

গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে স্বরকে কখনোই দমিয়ে রাখা যায় না। মন্তব্য সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অরুণ মিশ্রর বেঞ্চের। এদিন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির বেঞ্চ রাজস্থানের স্পিকার সিপি যোশীর আর্জি খারিজ করে দিয়েছে। সিপি যোশীর আর্জি ছিল পাইলটসহ ১৯ কংগ্রেস বিধায়ককে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে না। শচীন পাইলট শিবিরের বক্তব্য দল ছাড়তে চান না।

শুধু দলের নেতৃত্বে পরিবর্তন চান। স্পিকারের হয়ে আদালতের সওয়াল করেন কংগ্রেসের আইনজীবী সাংসদ কপিল সিব্বল। বিচারপতি অরুণ মিশ্রর পর্যবেক্ষণ ধরে নেওয়া যাক, বিধায়করা মানুষের আস্থা হারিয়েছেন। কিন্তু দলে থাকা অবস্থায় তাদের বরখাস্ত করা যায় না। তাহলে সেটাকে অস্ত্র হিসেবে অনেকেই প্রয়োগ করবে এবং দলের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারবেন না।

গণতন্ত্রকে বিরুদ্ধ স্বরকে কখনোই দমিয়ে রাখা যায় না। স্পিকারের পক্ষে কপিল সিব্বল বলেন বিধায়করা দলের বৈঠকে যোগ দেননি। কেন তাদের বরখাস্তের নোটিশ ধরাতে পারবেন না স্পিকার। এই পর্যায়ে এসে রাজস্থান হাইকোর্ট বিধায়কদের সুরক্ষার নির্দেশ দিতে পারে না। স্পিকার সিদ্ধান্ত নিতে চাইছেন। আদালত তাকে হস্তক্ষেপ করতে পারে না।

সিব্বলের এই যুক্তি খারিজ করেছে আদালত। শচীন পাইলটদের মামলায় সিদ্ধান্ত জানাবে সেটা জানিয়ে দেয় বিচারপতির বেঞ্চ। বিচারপতি মিশ্র বলেন যাইহোক ওই ব্যক্তিরা জনগণের দ্বারা নির্বাচিত। তাদের বিপরীত মত তারা কি জানাতে পারবেন না। সিব্বল বলেন ওদের অবস্থান ব্যাখ্যা করতে হবে। এ বিষয়ে স্পিকার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। কোনো আদালত নয়।

বৈঠকে বিধায়কদের যোগ না দেওয়ার অর্থ সদস্যপদ খারিজ এর সমান। তবে সেই যুক্তি শোনেনি শীর্ষ আদালত। আগামীকাল শুক্রবার বিচারপতি অরুণ মিশ্রর বেঞ্চ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে। রাজস্থান মামলায় কার্যত শচীন পাইলট দের পক্ষে মন্তব্য প্রকাশ করল সুপ্রিম কোর্ট।