Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

তৃণমূলের গুন্ডা-আক্রমণ অব্যাহত, এবার নিশানায় কোন নেতা?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব বিজেপি নেতাদের নানা বিশেষণে আক্রমণ করেন। ইদানিং তৃণমূল যুব সভাপতি তথা ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) প্রতিটি জনসভায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে সরাসরি নাম করে গুন্ডা বলছেন। এবার সেই সুরে তৃণমূলের যুবনেতা তথা দলের মুখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য (Debangshu Bhattacharya) বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামানিককে গুন্ডা, মাফিয়া বলে আক্রমণ করলেন। গত লোকসভা নির্বাচনে কোচবিহার থেকে বিপুল ভোটে জিতেছেন নিশীথ।

শুক্রবার কোচবিহার লোকসভার অন্তর্গত দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের ভেটাগুড়িতে একটি কর্মিসভার আয়োজন করে তৃণমূল।ভেটাগুড়ি ফুটবল মাঠে কর্মিসভাটি হয়। উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক উদয়ন গুহ। কর্মিসভার পর বক্তব্য রাখতে গিয়ে স্থানীয় বিজেপি সাংসদ নিশীথকে তীব্র আক্রমণ করেছেন তাঁরা। দেবাংশু নাম না করে তাঁকে উদ্দেশ্য করে বলেন,”আশপাশেই নাকি বড় গুন্ডা থাকে। কোচবিহারের বড় গুন্ডা। ডানদিকে বোমা থাকলে বাঁদিকে বন্দুক থাকে। কোচবিহারকে কাশ্মীরের মতো অশান্ত করতে চায়। আজ বোমা মারছে,কাল আবার গুলি চালাচ্ছে। এখানে জেতার পর এসব শুরু করেছে। তৃণমূলের পতাকা, ফ্লেক্স ছিড়ছে।

আরো পড়ুন : কবে নতুন দল ঘোষণা করছেন আব্বাস সিদ্দিকী?

মনে রাখবেন এভাবে তৃণমূলকে আটকানো যাবে না”। একইভাবে সুর চড়িয়েছেন তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ। উল্লেখ্য গত লোকসভা নির্বাচনের ফলের ভিত্তিতে ওই এলাকায় বিজেপির ব্যাপক ভোট বৃদ্ধি হয়েছে। নিশীথকে উদ্দেশ্য করে উদয়ন বলেন,” এখানে আমার এক ভাইপো আছে। ক্লাস টেনের জাল সার্টিফিকেট জোগাড় করেছে। মানুষ সবটাই জানেন। সেইসঙ্গে বলছি, স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান রতন বর্মন গুন্ডামি করছেন। এলাকা অশান্ত করে তুলছেন। তাঁর বিরুদ্ধে পুলিশ উপযুক্ত ব্যবস্থা না নিলে তাঁকে তুলে নিয়ে আসব”। উল্লেখ্য সম্প্রতি একটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টকে কেন্দ্র করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে কোচবিহারে। সেই প্রসঙ্গে পঞ্চায়েত প্রধান ও প্রাক্তন ব্লক সভাপতির নাম না করে উদয়ন গুহ বলেন,” সামনের রবিবার নয়ারহাটে যাব।

আমার সঙ্গে আপনারা যাবেন তো? কারা যাবেন বলুন”। যদিও উদয়ন গুহের এই ডাকে সেভাবে সাড়া পাওয়া যায়নি বলে মনে করছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। এদিনের কর্মিসভা নিয়ে বিজেপির দাবি, যে খেলার মাঠে সভা হয়েছে সেটা ভরেনি। বাইরে থেকে লোক নিয়ে আসা হলেও মাঠ ভরানো যায়নি। এলাকার মানুষ তৃণমূলকে প্রত্যাখ্যান করেছেন। এখন প্রশ্ন, এতদিন তো নিশীথ প্রামানিক তৃণমূলেই ছিলেন। যদি তাঁর বিরুদ্ধে সত্যিই গুন্ডামির অভিযোগ থাকে, তবে কেন তাঁকে গ্রেফতার করে শাস্তি দেয়নি পুলিশ প্রশাসন? তবে কি তৃণমূল ছড়ার পরেই নিশীথের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠছে? সেই প্রশ্ন করছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার জেলা তৃণমূল সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়। তিনিও বিভিন্ন ইস্যুতে বিজেপিকে আক্রমণ করেছেন।