Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

কয়লা -গরুপাচার কাণ্ডে এবার ইডির হানা, তদন্তে ১৫ দল

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই বিরোধী শিবিরে জোরালো হচ্ছে শাসকদলের বিরুদ্ধে কয়লা, গরু, বালি পাচারের অভিযোগ। কখনও কখনও তাদের মুখে চলে আসছে শীর্ষ নেতৃত্বেরও নাম। আর এবার, কয়লা এবং গরুপাচার কাণ্ডে সিবিআই (Central Bureau of Investigation)-এর পর এবার তল্লাশি শুরু করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (enforcement directorate) বা ইডি। সপ্তাহের প্রথম দিন সোমবার ইডির ১৫টি দল বিধাননগরের অফিস থেকে তল্লাশি অভিযান শুরু করে তল্লাশি চালায় কলকাতা থেকে শুরু করে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে। ইতিমধ্যেই, অবৈধ কয়লা খনি এবং গরু পাচারের অভিযোগে সিবিআই বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে।

কলকাতা এবং রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় তারা তল্লাশি চালিয়েছে। ইতিমধ্যেই সামনে এসেছে কয়লাকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত অন্যতম অভিযুক্তের নাম অনুপ মাঝি। ইতিমধ্যেই, তার বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই। লালা নামেই তিনি পরিচিত। এই লালা নামের ব্যক্তির বেআইনি কয়লা খনির বিরাট নেটওয়ার্ক রয়েছে বলেও সিবিআই সূত্রে খবর। গত ২৮ নভেম্বর সল্টলেকে লালার বাড়িতে একপ্রস্থ তল্লাশি চালায় সিবিআই। কলকাতায় একাধিক জায়গায় লালার অফিসেও তল্লাশি চালায় সিবিআই। অন্যদিকে, এই ঘটনার তদন্ত নেমে ইতিমধ্যে এনামুল হক নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে সিবিআই। তিনি গরু পাচারের সঙ্গে যুক্ত বলে অভিযোগ। এর পাশাপাশি সিবিআই হানা দেয় বিএসএফের কমান্ড্যান্ট সতীশ কুমারের বাড়িতেও।

আরো পড়ুন :বাড়িতে আমরা বন্ধু, শোভন -বৈশাখী সফল জুটি

গরু পাচারের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগের ভিত্তিতে সতীশ কুমারকেও গ্রেফতার করা হয়। আর এবার একই অভিযোগে তদন্ত নেমে পড়ল ইডি। চালানো হচ্ছে তল্লাশি। বিভিন্ন জায়গায় হানা দিচ্ছে ইডির দল। সোমবার সকালে ইডির বিধাননগরের অফিস থেকে তল্লাশি অভিযানে বার হয় ১৫টি দল। তাদের মধ্যে একটি দল কলকাতার বাঙুরের গণেশ বাগারিয়া নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে পৌঁছে যান। বাগারিয়া এনার্জি অ্যাগ্রো গ্রুপ প্রাইভেট লিমিটেডের কর্ণধার। তার সঙ্গে অনুপ মাঝির যোগাযোগ রয়েছে বলে অভিযোগ। এর পাশাপাশি দিনভর কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালানো হয়। কোন্নগরের কানাইপুর শান্ত্রী নগর এলাকাতেও অভিযান চালায় ইডি।

এছাড়া, সোমবার সকালে নীরজ সিং ও অমিত সিং-এর বাড়িতেও হানা দেন (enforcement directorate) বা ইডির আধিকারিকরা। প্রসঙ্গত, বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে কয়লা, গরু, বালি পাচারের অভিযোগে বারবার সরব হচ্ছে বিরোধী শিবির। অন্যদিকে, শাসক দল থেকে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানোর পর থেকেই বারবার এই বিষয়ে সরব হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী (Shubhendu Adhikari)। গতকাল রবিবারও পুরুলিয়ার সভা থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) নাম না করে তোলাবাজ ভাইপো বলে কটাক্ষ করার পাশাপাশি ‘অনুপ মাঝি লালার নেতৃত্বে কীভাবে খনিজ সম্পদ লুঠ হয়েছে আপনারা জানেন’। বলেও মন্তব্য করতে ভোলেননি শুভেন্দু অধিকারী (Shubhendu Adhikari)।