Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

অটুট রয়েছে তৃণমূল, দল ভাঙার প্রশ্নই নেই, দাবি মন্ত্রীর

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

তৃণমূল ভেঙে দু টুকরো হয়ে যাবে। বারবার এই দাবি করছে রাজ্য বিজেপি। বাম এবং কংগ্রেসের গলাতেও মাঝেমধ্যে একই সুর শোনা যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করলেন দল ভাঙার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। সেই সঙ্গে এদিন শুভেন্দু অধিকারী ইস্যুতেও মুখ খুলেছেন তিনি। গত কয়েকদিন ধরে তৃণমূল ভবনে ধারাবাহিকভাবে সাংবাদিক সম্মেলন করছেন রাজ্যের নেতা তথা মন্ত্রীরা। এদিন সাংবাদিক সম্মেলন করলেন বনমন্ত্রী।

বন দপ্তরের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক দিকের কথা এদিন তুলে ধরেন তিনি। তারপরে শুভেন্দু অধিকারী ইস্যু নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন রাজীববাবুকে। শুভেন্দু অধিকারী কি দল ছাড়ছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে তেমন সম্ভাবনা পুরোপুরি উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে রাজীব বলেন,” দল ভাঙার কোনো প্রশ্নই নেই। শুভেন্দু অধিকারী মন্ত্রিসভায় আমার সতীর্থ। তিনি তৃণমূলেই আছেন। সংবাদমাধ্যম নানাভাবে তাঁর বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন খবর করছে।

বিষয়টি নিয়ে সংবাদমাধ্যমের কাছে কি খবর আছে তা আমার জানা নেই। আমি যা জানি তা হচ্ছে শুভেন্দুবাবু দলেই রয়েছেন”। তবে শুভেন্দুবাবু যদি দলেই থাকবেন তাহলে জেলায় জেলায় আমরা দাদার অনুগামী লেখা শুভেন্দুর ছবিসহ ব্যানার-পোস্টার পড়বে কেন? সেই বিষয়টিও খোলসা করেছেন বনমন্ত্রী। তাঁর কথায়, ” রাজ্যের কোনো মানুষ যদি অতি উৎসাহী হয়ে শুভেন্দু অধিকারীর ছবি টাঙায় তাহলে তো কিছু বলার থাকতে পারে না। যদিও ব্যক্তিগতভাবে আমি এভাবে প্রচারে বিশ্বাসী নয়।

আরো পড়ুন : হুঙ্কার ওয়েইসির, বাংলায় তাঁরা অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠবেন…

আমি কিছুদিন আগে গান রেকর্ড করেছিলাম। পরে দেখলাম আমার ছবি লাগিয়ে গানসহ প্রচার হচ্ছে। আমি কিন্তু এগুলো অনুমোদন করি না”। শুভেন্দুর সঙ্গে দু-দুবার বৈঠক করেছেন তৃণমূলের প্রবীণ সাংসদ সৌগত রায়। হঠাৎ এমন বৈঠকের প্রয়োজন হল কেন? এমনকি আগামী দিনেও ফের একবার তাঁরা বৈঠকে বসতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। সেই প্রসঙ্গে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,” দলের একজন শীর্ষ নেতা দলের অন্যতম সদস্য তথা রাজ্যের মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন এতে অবাক হওয়ার কি আছে?

আমিও তো আজকে একটি বৈঠকে বসবো তৃণমূল ভবনে এক দলীয় নেতার সঙ্গে। এটাতো যে কোনো দলের ক্ষেত্রেই স্বাভাবিক ঘটনা।” সদ্য বাঁকুড়ার মাটি থেকে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন রাজ্যের প্রতিটি জেলায় তিনিই দলের পর্যবেক্ষক’। সেই প্রসঙ্গে তিনি বলেন,” দলের পুরো কর্তৃত্ব রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে। তিনি ঠিক করবেন পর্যবেক্ষক কে হবেন, কে হবেন না বা পর্যবেক্ষক পদটা আদৌ থাকবে কিনা।

বর্তমানে তিনি মনে করছেন রাজ্যের প্রতিটি জেলায় তিনি নিজেই পর্যবেক্ষকের ভূমিকা পালন করবেন। এটাতে অসুবিধার কিছু নেই”। উল্লেখ্য এক মাসেরও বেশি সময় ধরে শুভেন্দুকে নিয়ে জল্পনা চলছে তিনি তৃণমূলে থাকবেন নাকি দল ছেড়ে দেবেন সেই বিষয়টি নিয়ে। এবার দলের অন্যতম পরিচ্ছন্ন মুখ বলে পরিচিত এবং মন্ত্রিসভার অন্যতম সদস্য রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে সাংবাদিক সম্মেলন করিয়ে তৃণমূল এই বার্তাই দিতে চাইল যে, সামনের দিনে দল ভাঙার কোনো সম্ভাবনা নেই।

একটা সময় রাজীবকে নিয়েও একইরকম গুঞ্জন ছড়িয়ে ছিল রাজ্য রাজনীতিতে। তাই তাঁকে দিয়েই এদিন সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে তৃণমূল কার্যত শুভেন্দুকেও বার্তা দিতে চাইল যে, নবীন নেতাদের দল কতটা গুরুত্ব দিয়ে দেখে। এককথায় তৃণমূল যে সুখী পরিবার হিসেবে রয়েছে তা এদিন রাজীবের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইলেন তৃণমূল নেতৃত্ব।