Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

প্রতিবাদরত কৃষকরা ২টি দাবি প্রত্যাহারের সম্ভাবনা নাকচ করলেন

।। প্রথম কলকাতা ।।

হাজারো কৃষক দিল্লির বিভিন্ন সীমান্তে তীব্র শৈত্যপ্রবাহের মধ্যে ২০২১এর প্রথম দিনে শুক্রবার তাঁদের প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন। সরকারের সঙ্গে  ২টি বিষয়ে অচলাবস্থার মাঝে তারা তাদের দাবিতে অনড় রয়েছেন। ২৬শে নভেম্বর থেকে সিংঘু, গাজিপুর ও টিকরি সীমান্তে তারা শিবির করে রয়েছেন, এমনকী ১.১ ডিগ্রি তাপমাত্রার মধ্যেও।

সংযুক্ত কিসান মোর্চা শুক্রবারই বৈঠকে বসতে পারে তাদের ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা ঠিক করতে। সিনিয়ার কৃষক নেতা গুরনাম সিং চাদুনি বলেছেন, ২টি দাবি থেকে পিছিয়ে আসার কোনও প্রশ্নই নেই – ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের আইনী নিশ্চয়তা ও কৃষি আইনগুলি প্রত্যাহার।

সরকার আমাদের দুটি দাবি মেনে নিয়েছে – খড় পোড়ানো নিয়ে একটি অর্ডিন্যান্সে কৃষকদের বিরুদ্ধে দণ্ডযোগ্য বিধি বাতিল করা ও প্রস্তাবিত বিদ্যুৎ সংশোধনী আইন স্থগিত রাখা, চাদুনি বলেন। তিনি আরও যোগ করেন, কিন্তু আমরা পরিষ্কার করে দিতে চাই আমাদের আরও দুটি দাবির কোনও বিকল্প নেই – ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের আইনী নিশ্চয়তা ও কৃষি আইনগুলি প্রত্যাহার।

অল ইন্ডিয়া কিসান সংঘর্ষ কোঅর্ডিনেশান কমিটি, প্রতিবাদরত কৃষক সংগঠন, বিবৃতিতে বলেছে, সরকার যে কৃষকদের জানিয়েছে, আইন প্রত্যাহারের বিকল্প ভাবতে, সেটা সম্ভব নয়। নয়া আইনে কৃষিপণ্যের বাজার, কৃষকের জমি ও ফুড চেন কর্পোরেটদের নিয়ন্ত্রণে চলে যাবে, বিবৃতিতে জানিয়েছে কমিটি।

কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর জানিয়েছেন, মন্ত্রী ও ২১ জন কৃষক প্রতিনিধিদের মধ্যে ষষ্ঠ রাউন্ডের বৈঠকে ৪টির মধ্যে ২টি বিষয়ে ঐক্যমত্য হয়েছে। পরবর্তী বৈঠকটি হবে ৪ঠা জানুয়ারি। কৃষক প্রর্তিনিধিরা বারবার তিনটি কৃষি আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন, কিন্তু সরকার থেকে আইনগুলির সুবিধা কৃষকদের বোঝানো হয়েছে ও জানতে চাওয়া হয়েছে নির্দিষ্ট কী সমস্যার তারা সম্মুখীন হচ্ছেন। মন্ত্রী জানিয়েছেন, সরকার ইতিমধ্যেই কৃষকদের দাবি মেনে ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের আইনী নিশ্চয়তা নিয়ে নিখিত আশ্বাস দেওয়ার কথা জানিয়েছেন।