গণ যোগাযোগের অতীত, বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

তুরিয়া টকস সিজন তিনের ষষ্ঠ পর্বটিতে বিশিষ্ট ভারতীয় লেখক ও গবেষক এবং দ্য হিন্দু বিজনেসলাইনের প্রাক্তন উপ-সম্পাদক প্রতিম বোস এবং আমাদের সহ-প্রতিষ্ঠাতা সন্ধ্যা সুতোদিয়া গণ যোগাযোগের অতীত, বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আলোচনা করেছেন। মিঃ বোস বলেছেন, ” সংবাদের ঐতিহ্যবাহী রূপ অবশেষে পরিবর্তিত হবে এবং আমরা নিজেদের উন্নতি চাইলে এই পরিবর্তনের সাথে আমাদের খাপ খাইয়ে নিতে হবে।”

দ্বি-মুখী যোগাযোগ অর্থনীতিতে প্রবেশ করার ক্ষেত্রে ডিজিটাল মিডিয়াগুলির সহায়তা গ্রহণ করেছে, যার সাহায্যে চটজলদি তথ্য সরবরাহ করা সম্ভব।কোনও সংবাদপত্রের জন্য হোক বা কোনও টেলিভিশন চ্যানেলের জন্য, খবরের আসল উৎস এখন সোশ্যাল মিডিয়া।

তিনি আরও বলেছেন, “নব্বইয়ের দশকের আগে যে কোনো তথ্য সংগ্রহ করাই কঠিন ছিল। তবে বর্তমানে সঠিক তথ্য পাওয়াটা কঠিন হয়ে গেছে। “

ভারতে প্রিন্ট মিডিয়া খুবই সহজলভ্য। রাস্তার পাশে চায়ের দোকানের এক কাপ চায়ের তুলনায় কম দামে আপনি একটি সংবাদপত্র কিনতে পারেন। পাঠককেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে, তিনি কার ওপর নির্ভরশীল হবেন, সংবাদপত্র না সোশ্যাল মিডিয়া সাইট।

নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন, গুগলের মতো ব্র্যান্ডগুলি ইন্টারনেট জগতে চিরকাল শীর্ষে থাকতে পারবে না। কারণ প্রযুক্তি সর্বদা পরিবর্তনশীল এবং দিনের পর দিন তা দ্রুত উন্নীত ও পরিবর্তিত হচ্ছে।

“আত্মনির্ভর” হওয়ার জন্য আমাদের চারপাশে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক পরিবর্তনের সাথে নিজেকে উন্নীত করা, বোঝা এবং পরিবর্তনটি গ্রহণ করা প্রয়োজন।

মিঃ বোস এই বলে তাঁর আজকের বক্তব্য শেষ করেছিলেন যে, “বর্তমানে যেভাবে সাংবাদিকতা পরিচালন করা হচ্ছে, তার ফলে এটি সস্তার বিষয় হয়ে উঠেছে। এটা কখনোই কাম্য নয় কারণ, যখন কোনও প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্থ হয়, তখন আমাদের সকলকেই তার দুর্ভোগ পোহাতে হয়।”