কোরবানির ঈদের ভিড় পশুরহাটে নয় রেল ও বাস স্টেশনে

1 min read

।। মনির ফয়সাল, চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ ।।

কোরবানির ঈদের বাকী আর মাত্র চারদিন। অথচ চট্টগ্রামের পশুরহাটগুলোতে তেমন প্রভাব পড়েনি । যেখানে আগে এই সময়ে প্রচন্ড ভিড় জমত ক্রেতা-বিক্রেতাদের। তবে কোরবানির ঈদের প্রভাব পড়েছে চট্টগ্রামের রেল ও বাস স্টেশনগুলোতে।

ঈদের অগ্রিম টিকেট নিতে সোমবার (২৭ জুলাই) সকালে প্রচন্ড ভিড় জমে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে। যেখানে স্বাস্থ্যবিধি মানার দিকে কোন লক্ষ্যই নেই টিকেট প্রত্যাশীদের। এমনকি মুখে মাস্ক পর্যন্ত নেই অনেকের। করোনা সংক্রমণের আগের মতোই ভিড় জমিয়ে টিকেট সংগ্রহ চলছে।

নগরীর কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেডের কর্মকর্তা মহিউদ্দিন সাজ্জাদ জানান, গণপরিবহন বন্ধ থাকায় গত রমজানের ঈদে বাড়ি যেতে পারিনি। তাই কোরবানির ঈদে বাড়ি যেতে পুরো পরিবার ব্যাকুল। ফলে অগ্রিম টিকেট সংগ্রহ করতে এসেছি। সুবর্ণ এক্সপ্রেসের ৩০ জুলাইয়ের চারটি টিকেট নিয়েছি।

তিনি বলেন, টিকেট নিতে এসে প্রচন্ড ভিড়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথাই ভুলে গেছি। তাছাড়া টিকেট সংগ্রহে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার মতো কোন ব্যবস্থা রেল স্টেশনে চোখে পড়েনি।

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল চট্টগ্রাম বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা আনসার আলী জানান, ঈদ উপলক্ষে চট্টগ্রাম থেকে দৈনিক তিনটি ট্রেন যাতায়াত করবে। ঢাকাগামী সুবর্ণ, সিলেটগামী উদয়ন ও চাঁদপুরগামী মেঘনা এক্সপ্রেস। প্রত্যেকটি ট্রেনের শতভাগ টিকিট অনলাইনে দিয়ে দেয়া হয়েছে। সোমবার থেকে এই অগ্রিম টিকিট দেয়া হচ্ছে। তবুও টিকেটে পেতে স্টেশনে প্রচন্ড ভিড় জমেছে।

তিনি বলেন, টিকেটের জন্য আসা যাত্রীদের সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য বার বার বলা হচ্ছে। কিন্তু কে শুনছে কার কথা। অথচ করোনায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য সুবর্ণ এক্সপ্রেসের ৮৯৯ টিকিটের স্থলে ৪৫৪টি টিকেট ছাড়া হয়েছে। উদয়ন এক্সপ্রেসের ৫৯৬ টিকিটের স্থলে ৩৯৮ এবং মেঘনা এক্সপ্রেসের ৯২৮টি টিকিটের স্থলে ৪৬৪টি টিকেট ছাড়া হয়েছে।

একইভাবে বাসেও চলছে অগ্রিম টিকিট বুকিং। সেখানেও দেখা গেছে টিকেট নিতে আসা যাত্রীদের ভিড়। স্বাস্থ্যবিধি মানার দিকে নজর নেই তেমন কারোই। তবে বাস কাউন্টারে টিকেট প্রত্যাশীদের হাতে চিটানো হচ্ছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

এস আলম পরিবহনের ম্যানেজার মো. মনির হোসেন এ প্রসঙ্গ বলেন, ঢাকা রুটে ২৯ ও ৩০ জুলাই দু‘দিনে ১০টি করে বাস রেখেছি আমরা। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই বাসগুলো চলাচল করবে। এসব বাসের কিছু অগ্রিম টিকেট ইতোমধ্যে বিক্রি হয়েছে।

সৌদিয়া পরিবহনের ম্যানেজার সেলিম রেজা বলেন, ঢাকা রুটে ২৯ ও ৩০ জুলাই দু‘দিনে ১০টি করে বাস চলাচল করবে। এরমধ্যে অর্ধেক টিকিট বিক্রি হয়েছে। এছাড়া সাতক্ষীরা রুটে ৪টি, খুলনা রুটে ২টি, যশোর রুটে ১টি, সিলেট রুটে ৩টি গাড়ি চলাচল করবে। সবকটি বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রী করা হচ্ছে। তবে টিকেট নিতে আসা যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি মানার দিকে নজর কম।