Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

কালীঘাটে পিসির মন্দিরে পৌঁছবে সিবিআই, সায়ন্তনের মেজাজ চটা

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

নাম না করে ফের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে নিশানা য় নিলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু (Sayantan Basu) । তিনি বলেন সিবিআই পুলিশের সাহায্য পায় না কলকাতা পুলিশ কমিশনারের বাড়িতে রেট করতে গিয়েছিল সিবিআই পুলিশ তাদেরকে আটকে ছিল। পাচার চক্রের রেট চলছে রাজ্যে। যে দুজনকে ধরেছে এবার কান টানলে মাথা আসবে। কালীঘাট রেট করতে গেলে তো পুলিশ দিয়ে হবে না তার জন্য সিআরপিএফ লাগবে। পিসির মন্দিরে সিবিআই পৌঁছাবে। তাই দুই কোম্পানির কেন্দ্রীয় বাহিনী আসছে। কালীঘাটে দুটি মন্দির আছে এখন মায়ের মন্দিরে তৃণমূলের কর্মীরা কেউ যায় না পিসির মন্দিরে যায়।

আজ মালদা কলেজ অডিটরিয়ামে পঞ্চায়েত জনপ্রতিনিধি সম্মেলন থেকে এমনটাই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বললেন সায়ন্তন বসু (Sayantan Basu)। উল্লেখ্য বিধানসভা নির্বাচনের আগেই রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়েছিল বিজেপি নেতৃত্ব। সেই দাবি মেনে নিয়ে রাজ্যে আসতে চলেছে দুই কম্পানির কেন্দ্রীয় বাহিনী। তবে তৃণমূল দাবি করেছিল বিজেপি নেতাদের নিরাপত্তা দিতে আগাম কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠাচ্ছে নয়াদিল্লি। কিন্তু বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু দাবি করলেন সিআরপিএফ আসছে সিবিআই যাতে কালীঘাটে রেট করতে পারে। আবার অন্যদিকে বাম ও কংগ্রেস রাজ্য বিধানসভায় আস্থা ভোট করার দাবি জানিয়েছে।

আরো পড়ুন : সংখ্যা লঘু ভোটারদের নিয়ে ভয় দেখাচ্ছে? যা বার্তা দেওয়ার দিয়ে গেলেন শুভেন্দু

বিজেপির দাবি ছিল ভোটের আগে শাসকদলের বহু বিধায়ক নেতার দল ছেড়ে তাদের সঙ্গে যুক্ত হতে পারেন। এবার সায়ন্তন বসু বললেন আস্থা ভোট হলে তৃণমূল কংগ্রেসে ১০০ জন বিধায়ক কেও পাবেনা। আস্থা ভোট হলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ডাহা ফেল করবে। পাশাপাশি সায়ন্তন বসু (Sayantan Basu) বিজেপিতে যোগদান প্রসঙ্গে বলেন মদন মিত্র যে বেরোবেন না তার কোন গ্যারান্টি আছে? কারণ মদন মিত্রের গ্যারান্টি পিরিয়ড এমনিও শেষ হয়ে গিয়েছে বলে তিনি কটাক্ষ করেন। বাংলায় উন্নতির জন্য তৃণমূল কংগ্রেসকে উৎখাত করে বিজেপি (bjp) সরকারকে আনলেই তবেই সোনার বাংলা গঠন করা হবে বলে দাবি রাখেন সায়ন্তন বসু।

তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাড়ি তৈরি শৌচালয় তৈরি করার জন্য টাকা দিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস তা মেরে নিয়েছে। তবে সায়ন্তন বসু কে পাল্টা জবাব দিয়েছেন মালদা জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র শুভময় বসু। তিনি বলেন সায়ন্তন বসু ভুলভাল কথা বলেন। তার জন্যই তার দলের কাছে তিনি শোকজ হয়েছিলেন। ওসব সিবিআই বা কেন্দ্রীয় বাহিনীর গল্প শুনিয়ে লাভ নেই। মানুষ সব দেখছে। বিজেপির ক্ষমতা থাকলে রাজ্যপালকে দিয়ে বিশেষ অধিবেশন ডাকিয়ে অনস্থা আনুক। সায়ন্তন বসুর কথার কোন গুরুত্ব নেই।