Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

কালো গ্লাভস পরে এসেছিল তখন ঘুটঘুটে রাত, গোঘাটে খুন বিজেপি সমর্থক

।। প্রথম কলকাতা ।।

হাতে কালো গ্লাভস পরে সোমবার রাতের অন্ধকারে বিজেপি কর্মীর বাড়িতে চড়াও হল দুষ্কৃতীরা। অভিযোগ তারা তৃণমূল আশ্রিত। ছেলেকে না পেয়ে তাদের হাতে খুন হয়েছেন মা। পরিকল্পনামাফিক এই হামলা হয়েছে গোঘাট বিধানসভার অন্তর্গত বদনগঞ্জের খুশিগঞ্জ গ্রামে। অস্ত্রে হাতের ছাপ যাতে না পড়ে, সেই কারণে গ্লাভস ব্যবহার করেছে দুষ্কৃতীরা। সাম্প্রতিককালে এমন পৈশাচিক রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড বাংলায় দেখা যায়নি। স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের মানুষ বসবাস করেন।

এতটাই তাঁদের খারাপ অবস্থা, অধিকাংশের বাড়িতে দরজা পর্যন্ত নেই। সোমবার গভীর রাতে ওই গ্রামের বাসিন্দা বিজেপি সমর্থক মাধবী আদকের বাড়িতে চড়াও হয় দুষ্কৃতীরা। অভিযোগ সেখানকার তৃণমূল প্রার্থী মানস মজুমদারের মদতে এই হামলা চালানো হয়। স্বাভাবিকভাবেই এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল। বিজেপির অভিযোগ, ওই বাড়িতে ঢুকে মহিলার ছেলেকে খোঁজে দুষ্কৃতীরা। সেই যুবক তখন প্রাণভয়ে শৌচাগারের মধ্যে লুকিয়ে ছিলেন।

আরো পড়ুন : তৃতীয় দফার ভোট চলছে খোশ মেজাজে দিলীপ, সকাল সকাল খেলেন আখের রস

তখন লাঠি, বাঁশ, বন্দুকের বাঁট দিয়ে ব্যাপক মারধর করা হয় মাধবী আদককে। ঘটনাস্থলে লুটিয়ে পড়েন তিনি। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে গ্রামবাসীরা ভিড় জমান সেখানে। মৃত মহিলার মেয়ে অজ্ঞান হয়ে যান ঘটনা দেখে। গোটা গ্রামে কান্নার রোল উঠেছে। এই অবস্থায় কেউ ভোট দিতে যেতে চাইছেন না। ইতিমধ্যেই ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে। গোটা ঘটনা নিয়ে তদন্ত করছে গোঘাট থানার পুলিশ।

বিজেপির অভিযোগ মঙ্গলবার সকালে যাতে ভোটাররা ভোট দিতে না যান সেই কারণে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করতে সোমবার গভীর রাত থেকে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাণ্ডব শুরু করেছে বিস্তীর্ণ অঞ্চলে। কিন্তু প্রশ্ন কেন্দ্রীয় বাহিনী সেখানে কি করছে? নির্বাচন কমিশন যে কুইক রেসপন্স টিম অর্থাৎ কিউআরটি গঠন করেছে তাদের ভূমিকা ঠিক কী?

এই প্রশ্ন তুলছেন সাধারণ মানুষ। ‌ উল্লেখ্য এই ধরনের ঘটনা অতীতেও ঘটেছে রাজ্যে। আগের রাত থেকে এলাকায় অশান্তি শুরু করা হয়, যাতে ভোটাররা ঘর থেকে বের হতে না পারেন। ঠিক সেই কায়দায় সোমবার গভীর রাতে গোঘাটে ওই বিজেপি সমর্থক মহিলার বাড়িতে দুষ্কৃতীরা হামলা চালিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।