বিজেপি যেটা করে তৃণমূল সেটাকে অনুকরণ করে, বলেন দিলীপ

।। রাজীব ঘোষ ।।

খোকাবাবুর প্রত্যাবর্তন হয়েছে। ভার্চুয়ালে খোকাবাবু কে দেখতে পেলাম। চার মাস খোকাবাবু কোথায় ছিলেন। এখন পাঁচ লাখ জোগাড় করেছেন সেবা করবেন বলে। যাদের মৃত্যু হয়েছে, যারা একটা ত্রিপল পাননি, খাবার পাচ্ছেন না, তখন তাদের কথা মনে পড়েনি। তৃণমূল যুব নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভার্চুয়াল সভাকে কটাক্ষ করে বললেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

এদিন তিনি শাসক তৃণমূলের ভার্চুয়াল সভা থেকে করোনা বিজেপির ত্রাণ থেকে তৃণমূলের অনুকরণ নীতি বিভিন্ন বিষয় তুলে আক্রমণ করলেন। দিলীপ ঘোষের কথায় বিজেপি ৩৫ লক্ষ পরিবারকে চাল ডাল এবং ২০ লক্ষ পরিবারকে রান্না করা খাবার খাইয়েছে। সেই সময় তৃণমূলের এই ৫ লক্ষ ভলেন্টিয়ার কি চাল লুট করতে ব্যস্ত ছিল। প্রসঙ্গত, তৃণমূল সাংসদ এবং যুবনেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার যুবশক্তি দ্বিতীয় পর্যায়ের সূচনায় ভার্চুয়াল সভা করেন।

সেখানে তিনি ৫ লক্ষ যুব যোদ্ধা তৈরি করে প্রত্যেককে ১০ টি পরিবারের দায়িত্ব নিতে বলেন। সেই কর্মসূচিতে যেকোনো রাজনৈতিক দলের সমর্থকরা যোগ দিতে পারেন বলে জানান অভিষেক। এই প্রসঙ্গে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন মোদীজি যখন ভার্চুয়াল সভা করছিলেন তখন দিদিমণি হেসেছিলেন। বলেছিলেন কোটি কোটি টাকা খরচ করে বিজেপি নাকি ভার্চুয়ালি র‍্যালি করছেন। আসলে তিনি তখন এর অর্থ বুঝতেন না।

মোদিজীর ভার্চুয়াল র‍্যালিতে এত মানুষের সমাগম হল আর উনি হাসলেন। তারপর হয়তো কেউ বুঝিয়েছেন ভার্চুয়ালি টাকা খরচ হয় না। তাই নিজে করে ফেললেন। আসলে বিজেপি দেখেই উনি সব করেন। বিজেপি যেটা আগে করে তৃণমূল পরে সেটাকে অনুকরণ করে। আমরা যেমন ভলেন্টিয়ার দিয়ে মানুষের বাড়িতে চালডাল পৌঁছে দিয়েছি। সেবা করেছি। দিদিমণি সব জিনিস দেরিতে বুঝতে পারেন।

এরপরে দিলীপ ঘোষ বলেন মোদীজি ফেব্রুয়ারীতে দিদিমণিকে সতর্ক করেছিলেন। তখন তিনি হেসেছিলেন। লোককে বুঝিয়েছিলেন দিল্লি দাঙ্গা থেকে নজর ঘোরানোর জন্য মোদীজি এইসব বলছেন। দেরীতে বুঝেছেন করোনা কতটা ভয়ঙ্কর। এখন বাংলার মানুষ বুঝছেন। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভার্চুয়াল সভা কে কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।