Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বিজেপির লেনদেন আছে পাকিস্তানের সাথে বিস্ফোরক ফিরহাদ

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

পাকিস্তানের কাগজ তৃণমূলের কাছে আসে না। বিজেপির লেনদেন আছে পাকিস্তানের সাথে।ওই জন্য নির্বাচন এলেই নরেন্দ্র মোদির পুলওয়ামা কান্ড চলে আসে দেশ প্রেম জেগে যায়। নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর পাকিস্তানের উগ্রপন্থীরা আবার পাঁচ বছরের জন্য শুয়ে পড়েন। পাকিস্তানের সাথে বিজেপির মত ভালো লেনদেন ভারতবর্ষের আর কোন পার্টির ছিল না। আজ ভাটপাড়া থেকে এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ তুললেন বিজেপির বিরুদ্ধে ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim)। এবারের নির্বাচন হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে চলেছে তা আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। ইতিমধ্যেই বাংলার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিরোধী দল বিজেপি হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে নেমে পড়েছে।

আজ ভাটপাড়ার সভা থেকে বিজেপি কে কটাক্ষ করে ফিরহাদ হাকিম বলেন বিজেপি এখন আবার আর একজনকে নিয়ে এসেছে নিজেদের হিন্দু দল বলে কিন্তু হায়দ্রাবাদ থেকে এক মুসলমান পার্টি নিয়ে এসেছে। বিহারে কয়েকটি আসন দখলের পর এবার বাংলাকে টার্গেট করেছে মিম প্রধান। ফিরহাদ বলেন বিহারের মানুষের মত বাংলার মানুষ ভুল করবে না। মিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি কে ভোট কাটুয়া বলে কটাক্ষ করেন তিনি। তৃণমূল বারবার অভিযোগ তুলেছে ওয়েইসি র পিছনে আছে বিজেপি। তাকে বিজেপি বিভিন্ন রাজ্যের ভোটের লড়াই করতে সাহায্য করে। তাই আজ ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim) কটাক্ষ করে বলেন একই রাক্ষসের ডান হাত বাম হাত চলে এসেছে বাংলায়।

আরো পড়ুন : তোলাবাজি, কয়লা পাচারের টাকা কীভাবে গিয়েছে কলকাতায়? জানালেন শুভেন্দু

বিধানসভা নির্বাচনে প্রচারে ঝড় তুলেছে বিজেপি নেতৃত্ব। পিছিয়ে থাকতে চাইছে না তৃণমূল। আসলে বিধানসভা নির্বাচন টা জমজমাট লড়াই হতে চলেছে তা সকলেই বুঝে গিয়েছেন। ২০২১ এ কি সত্যি ভাগ্য বদলাবে? কার দখলে থাকবে শাসনভার। তা নিয়ে চলছে জোর লড়াই। সাধারণ মানুষের মনে ঘুরছে একটি প্রশ্ন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে কি থাকবে বাংলার দায়িত্ব নাকি দেখা যেতে পারে পরিবর্তনের কোন ছবি। তবে এখন চলছে শক্তি প্রদর্শনের লড়াই।পূর্ব বর্ধমানে জেপি নাড্ডা কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন বাংলায় মমতার সরকারকে আর কেউ চাইছেনা। বাংলায় বিজেপি আসছে। আর তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি কোনভাবেই বিজেপি বাংলায় আসবে না তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চ্যালেঞ্জ পাল্টা চ্যালেঞ্জে জমে উঠেছে এখন বঙ্গ রাজনীতি।