Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ভারতীয় জনতা পার্টি সাম্প্রদায়িক নয়, মূল্যায়ন শুভেন্দুর

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

নন্দীগ্রামে একাধিক মসজিদ আছে যেখানে সাবমারসিবল পাম্প টা আমার বসিয়ে দেওয়া। নন্দীগ্রামে একাধিক মসজিদ আছে যেখানে গরমের সময় আমি এসি মেশিন বসিয়ে দিয়েছি। আবার জানকীনাথ মন্দিরের সেবা যত্ন ও করেছি।সিদ্ধিনাথ মন্দিরের অনেক দূর দূর থেকে মানুষজন আসতেন মন্দিরে পুজো দিতে, তাদের থাকার জন্য আবাস ঘর তৈরি করে দিয়েছি। এই সবকিছুই শুভেন্দু অধিকারীর (Subhendu Adhikari) হাত দিয়ে হয়েছে। আমি বরাবরই বলেছি আমি সনাতন ধর্ম করি আমি হিন্দু। কিন্তু আমি রাজনৈতিক কর্মী তাই আমার ধর্ম একটাই মানব ধর্ম। নন্দীগ্রামের সভা থেকে এমনটাই বললেন আজ শুভেন্দু অধিকারী।

গত ৮ জানুয়ারি নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী সহায়তা কেন্দ্র অফিসে হামলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। এই প্রসঙ্গে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে আজ শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari) বলেন আমি সব দিনক্ষণ তারিখ লিখে রাখলাম সুদে আসলে ফেরত পাবেন। আমার ভয় টয় পাবার ব্যাপার নেই। ২০০৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি গঙ্গা মোড়ে আমায় হলদিয়াতে মেরেছে। ২১০ সালে আমার কাঁধে পাথর পড়েছে এই রকম ৮ থেকে ৯ টি ঘটনা রয়েছে। আমি কোন কিছুতেই ভয় পাইনা। আমার কাছে হামলার ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ রয়েছে। শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে চলে গিয়েছে মানে মুসলমানদেরকে ভাসিয়ে দেবে।

আরো পড়ুন : কালো কারা? বিজেপিতে গিয়ে যাঁরা সাদা হয়েছেন, কী বললেন মমতা?


লজ্জা লাগেনা যখন লকডাউন হয়েছিল তখন মোদীজি হিন্দু-মুসলমান সকলকে গ্যাস দিয়েছিল তখন সেই গ্যাসে রান্না করেছিলেন। মোদিজির দেওয়া গ্যাসে রান্না করতে লজ্জা লাগে নি।মোদিজীর ৫০০ টাকা মোদিজীর ৫ কেজি চাল ১ কেজি ডাল বাড়িতে নিয়ে আসতে লজ্জা লাগেনি। আজ সভা থেকে এমনই প্রশ্ন তোলেন শুভেন্দু অধিকারী। উল্লেখ্য নির্বাচনী লড়াইয়ে তৃণমূলের পক্ষ থেকে বারবার অভিযোগ তোলা হচ্ছে বিজেপি দাঙ্গাবাজ দল।তবে তৃণমূল কংগ্রেস যতই বিজেপিকে সাম্প্রদায়িক দল হিসেবে প্রচার করুক মোদীজি যে হিন্দু মুসলমান সম্প্রদায় কে সমান চোখে দেখেন তা একবার প্রমাণ করতে চাইলেন নন্দীগ্রামের সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারী।

বিজেপির বিরুদ্ধে ভোট ব্যাংকের জন্য মানুষের মধ্যে বিভাজন তৈরী করার চেষ্টা চালাচ্ছে তৃণমূল এমন অভিযোগ বারবার এনেছে বিজেপি নেতৃত্ব।শুভেন্দু অধিকারী আজ আরও বুঝিয়ে দিলেন তিনি মুসলমানদের জন্য অনেক কিছু করেছেন তিনি বিজেপিতে গিয়েও তাদের জন্য অনেক কিছু করবেন। তাই ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই বলেও তিনি বার্তা দিয়েছেন। শুভেন্দুর আজ এই বক্তব্য রাজনীতিতে নয়া মাত্রা যোগ হলো বলে মনে করছেন অনেকে। পাশাপাশি শুভেন্দু অধিকারী বিভিন্ন সভা মঞ্চ থেকে স্পষ্ট দাবি রাখছেন তিনি এবার বাংলায় পদ্মফুল ফোটাবেন।নন্দীগ্রামে যারা শুভেন্দু অধিকারীর অফিস ভাঙচুর করেছেন তাদের যে তিনি চিনে ফেলেছেন এবং আগামী নির্বাচনে জিতে তিনি সেসব সুদে আসলে ফেরত দেবেন তারও কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখলেন শুভেন্দু।