Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

মহা অষ্টমীতে মধুমিতার মুখের হাসি দেখে ফিদা হবেন আপনিও

1 min read

।। স্বর্ণালী তালুকদার ।। কলকাতা ।।

পুজো মানেই নতুন পোশাক, নতুন জুতো, নতুন রঙে নিজেদের রাঙিয়ে নেওয়া। তার উপর তারকাদের তো পুজো মানেই প্রচুর ব্যস্ততা। সিনেমার মুক্তির অনুষ্ঠান, পুজো উদ্বোধন, পরিবার-পরিজনের সঙ্গে সময় কাটানো, আরও কত কি! কিন্তু এর মধ্যেও সোশ্যাল মিডিয়াতে আপডেট দিতে কিন্তু কেউ ভোলেন না। কারণ করোনা জুজুর কারণে বহু মানুষ ঘরে বসেই পুজো কাটাচ্ছেন। ফোনে স্ক্রল করে তাদের দিন কাটছে। তাই তাদের বিনোদনে যাতে কোনও আঁচ না পড়ে, তাই তারকাদের চেষ্টা তাদের মুখে হাসি ফুটিয়ে তোলা। 

এই বিষয়ে এগিয়ে রয়েছেন টলি তারকারা। অভিনেত্রী মধুমিতা চক্রবর্তী নাকি শাড়ি পরা ছবি দিচ্ছেন না বলে মন খারাপ অনুরাগীদের। তাদের মুখে হাসি ফোটাতে তিনি পোস্ট করেছে মহা অষ্টমী স্পেশাল ছবি। সেখানে সাদা লালপাড় সাবেকি শাড়িতে লাস্যময়ীকে দেখা গেল আরও এক রূপসীর সঙ্গে। ড্রাকুলা স্যার সিনেমার মুক্তির অভিনন্দন জানাতে মধুমিতা গিয়েছিলেন প্রিমিয়ারের অনুষ্ঠানে। সেখানেই সিনেমার নায়িকা মিমি চক্রবর্তীকে কাছে পেয়ে আপ্লুত মধুমিতা। গোলাপি শাড়িতে মিমিকেও দারুন দেখতে লাগছে।

অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী আবার নিজেকে সাজিয়েছেন কালো শাড়িতে। চুলে খোঁপা, মুখে চওড়া হাসি, চোখে কাজলের সরু রেখা, কপালে লাল টিপ – একেবারে সাবেকি সাজে ধরা দিয়েছেন তিনি। মুখের হাসি জিজ্ঞেস করছে, অনুরাগীদের পুজো কেমন কাটছে? কিন্তু উল্টে হাসির জাদুতে কাবু সহকর্মী অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। আবীর চ্যাটার্জি যেমন বললেন স্টানিং, রুদ্রনীল বাবু আবার বাহ! বলে লাভ রিঅ্যাক্টও করেছেন। সব মিলিয়ে মিমির পুজো কিন্তু দারুন কাটছে। একদিকে ড্রাকুলা স্যার, অন্যদিকে এস ও এস কলকাতা – দুই সিনেমার জন্য প্রশংসায় পঞ্চমুখ সিনেমা প্রেমীরা। 

অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ আবার ভাবুক হয়েছেন পুজোর আলোর মেলা দেখে। তিনি এককথায় লিখেছেন মা আর সঙ্গে রেখেছেন মায়ের মৃন্ময়ী মুর্তির সঙ্গে একটি ছবি। সেই ছবিতে চশমা পরে, একটি পাঞ্জাবিতে দেখা গিয়েছে অভিনেতাকে। বহুদিন পরে তিনি ক্লিন শেভড অবস্থা দেখা দিলেন। পুজোতে একটু সাজগোজ না হলে চলে বুঝি!

অভিনেত্রী নুসরত জাহান পুজোর মজা নিতে একেবারে তৈরী। তড়িঘড়ি শ্যুটিং সেরে তিনি কলকাতায় ফিরেছেন। প্যান্ডেলে গিয়ে নয়, বরং বাড়িতে থেকেই তিনি এবারের পুজো কাটাবেন। সেই মতো হলুদ শাড়িতে সেজেছেন তিনি। গলায় সবুজ চোকার, চোখে গাঢ় কাজলের রেখা, কানের দুলে একেবারে দুর্গাপুজো স্পেশাল লুকে তিনি চমকে দিয়েছেন অনুরাগীদের। 

অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা সরকার সেজেছেন লাল শাড়ি এবং কালো স্লিং স্লিভ ব্লাউজে। চুল রেখেছেন সিথি করে দুই দিকে ছোট ব্রেইডের সজ্জা এবং কানে একটি দুল – ছিমছাম সাজে স্মিত হাসি দিয়েই কাঁপিয়েছেন নেট পাড়া। বড্ড মিষ্টি লাগে প্রিয়াঙ্কাকে এত সাধারন সাজেও। এবারের পুজোটা তিনি বাড়িতে সহজের সঙ্গে থেকে থাকবেন বলে জানিয়েছেন। কিন্তু তাই বলে সাজুগুজু হবে না, তা আবার হয় নাকি!

অভিনেত্রী নয়না গাঙ্গুলি আবার সেজেছেন নীল শাড়িতে। প্রায় মেকআপহীন লুকে শুধু ঠোঁটে হালকা লালিত্যের ছোঁয়া রেখে তিনি স্মিত হেসে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মহাষ্টমীর। মেকআপ ছাড়াও যে দেখতে সুন্দর লাগতে পারে, তা নয়নাকে না দেখলে বিশ্বাস করা একটু মুস্কিল। তবে বাঙালীয়ানা ভরপুর নয়না সকলের উপর মায়ের কৃপা বর্ষিত হোক, এমনটাই কামনা করেছেন।

অভিনেতা রাজা গোস্বামী অষ্টমীর শুভ তিথিতে একেবারে সাবেকী রঙে নিজেকে রাঙিয়ে নিয়েছেন। হলুদ টি শার্টে সদ্য স্নান সের হাসি মুখে পোজ দিয়েছেন ছবিতে। সেই সঙ্গে রয়েছে মধুবনীও। তিনি স্নিগ্ধ শাড়িতে রাঙিয়েছেন নিজেকে। চওড়া হাসি রয়েছে তাঁর মুখেও। এই জুটি একসময়ে টেলিভিশন কাঁপিয়েছেন কয়েক বছর ধরে। তবে এখন তাঁরা নিজস্ব ব্যবসায় মন দিয়েছেন।

মহাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানাতে সকাল সকাল সাবেকি সাজে সেলফি পোস্ট করেছেন সঙ্গীতশিল্পী পৌশালি ব্যানার্জী। মুলতঃ লোকসঙ্গীতের জন্য তিনি সুপ্রসিদ্ধ। তবে এই বছর অনলাইনে থেকেই অনুষ্ঠান উপভোগ করার পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর। পুজো মানে দেদার আড্ডা আর খাওয়া দাওয়া – যা তিনি এই বছর একটু হলেও মিস করবেন বলে জানিয়েছেন। 

অভিনেত্রী রচনা বন্দোপাধ্যায় আবার একটু ভাবুক হয়ে পড়েছেন পুজো নিয়ে। তিনি লিখেছেন, একটু নিজের মত করে আনন্দ করার চেষ্টা করলাম, কিন্তু কোথাও গিয়ে ভালো লাগছে না। মা আসছেন, এটাই যা একটু ভরসার, প্রার্থনা একটাই, সব যেন ঠিক হয়ে যায়। তবে তিনি যেখানেই যান না কেন, মাস্ক পরতে কিন্তু ভোলেন না। আপনিও ভুলে যাবেন না। 

অষ্টমীর অঞ্জলীতে শাড়ি না পড়লে হয় বুঝি! রুকমা রায়ের কিন্তু শাড়ি ছাড়া চলে না। যতই তিনি জিন্স বা পশ্চিমী পোশাকে ফটোশ্যুট করে নেন না কেন, রাজকুমারীর কিন্তু পুজোর সময় শাড়ি পড়া চাইই। তাই তো নীলম্বরী কন্যার সাজে তিনি রূপের আগুনে ঝলসে দিতে সোশ্যাল মিডিয়াতে হাজির হয়েছে লাস্যময়ীর সেলফির সঙ্গে। মুখের হাসি, চোখের কাজল, উজ্জ্বল ত্বকের লাবণ্যে তো ভিরমি খাওয়ার উপক্রম অনুরাগীদের।