Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

হঠাৎই রাজভবনে শুভেন্দু, কী বলছেন ধনকড়?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

রাজ্যপাল রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান। তাই তাঁর কাছে রাজনৈতিক জগতের পাশাপাশি বিভিন্ন ক্ষেত্রের মানুষ যাবেন, সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে উঠেছে। তৃণমূলের অভিযোগ রাজ্যপাল পুরোপুরি বিজেপির হয়ে কাজ করছেন। এমনকি তাঁকে সরাসরি বিজেপির এজেন্ট বলে নিশানা করে চলেছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। তাই বিজেপি নেতৃত্ব রাজভবনে গেলে বিষয়টিকে অন্য চোখেই দেখে শাসক দল। এই পরিস্থিতিতে সোমবার সন্ধ্যায় রাজভবনে গেলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari)। উল্লেখ্য কিছুদিন আগেই কেন্দ্রীয় সরকার শুভেন্দুকে জুট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান পদে মনোনীত করেছে।

এই পদটি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মর্যাদাসম্পন্ন। শুভেন্দুর সঙ্গে আজকের সাক্ষাৎ সৌজন্যমূলক বলেই দাবি করা হয়েছে। আর সাক্ষাতের পর রাজ্যপাল টুইট করে শুভেন্দুর প্রশংসা করেছেন। এই বছরে জুট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া ৫০ বছর পূর্ণ করল। সেই প্রসঙ্গে রাজ্যপাল টুইট করে লিখেছেন, সুবর্ণজয়ন্তীতে শুভেন্দু অধিকারীর মতো আবেগ সম্পন্ন মানুষের উপস্থিতিতে সোনালি হয়ে উঠবে জুট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া। তাতে পাটশিল্পের পাশাপাশি পাট শ্রমিকদের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। এই পদে মনোনীত হওয়ার পর শুভেন্দু প্রথম সাক্ষাৎ করলেন রাজ্যপালের সঙ্গে। রাজ্যপালের আশা জুট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া আগামীদিনে সুন্দরভাবে এগিয়ে যাবে। নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর (Subhendu Adhikari) কার্যালয় ভাঙচুর করেছে দুষ্কৃতীরা। বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছেন শুভেন্দু।

এ ব্যাপারে একটি বিশেষ গোষ্ঠীর দিকে তিনি অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। উল্লেখ্য তৃণমূল বিধায়ক পদ ছাড়ার পর শুভেন্দু প্রথমেই গিয়েছিলেন রাজভবনে। তিনি নিরাপত্তা চেয়েছিলেন তাঁর কাছে। কিছুদিন পর দেখা যায় কেন্দ্রীয় সরকার শুভেন্দুকে জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা দিয়েছে। গতকাল দিল্লিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেছেন রাজ্যপাল। পরে সাংবাদিকদের সামনে পশ্চিমবঙ্গে আইন-শৃঙ্খলার হাল নিয়ে সরব হয়েছেন তিনি। বারবার বলছেন বাংলায় সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা তিনি দেখছেন না। এই পরিস্থিতিতে আজ রাজভবনে শুভেন্দু অধিকারীর যাওয়াটা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

এর আগে ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী (Sourav Ganguly) রাজভবনে গিয়েছিলেন। সৌরভ বিজেপিতে আসবেন, এই জল্পনা বহুদিন ধরে চলছে রাজ্য রাজনীতিতে। তাই সৌরভ সেদিন রাজভবনে যাওয়ায় চর্চা নতুন করে শুরু হয়। কিছুদিন পর সৌরভ অসুস্থ হওয়ার পর হাসপাতালে তাঁকে দেখতে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল। অর্থাৎ রাজ্যপালকে নিয়ে সব সময় একটা রাজনীতি সংক্রান্ত বাতাবরণ তৈরি হয় বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। যদিও সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে রাজ্যপালের কাছে সবাই যাবেন, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু তবু কিছু প্রশ্ন ওঠে বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে। শুভেন্দু আজ রাজভবনে যাওয়ার পর নতুন করে চর্চা শুরু হয়েছে বিষয়টি নিয়ে।