সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন

।। প্রতীক রায় ।।

দুই বাংলার সমান জনপ্রিয় অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়েছে। মস্তিষ্কে কোভিড এবং এনকেফ্যালোপ্যাথি রোগের কারণে প্রখ্যাত এ অভিনেতার স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা এখনো কাটছে না।

রবিবার রাতে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শরীরে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের তারতম্য ঘটেছে। রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণও কমে গিয়েছে। প্লেটলেটের সংখ্যাও অত্যন্ত কম। বেড়ে গিয়েছে ইউরিয়ার পরিমাণ। বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গ সচল থাকলেও বর্ষীয়ান এই অভিনেতার শারীরিক জটিলতা ও কো মর্বিডিটি চিকিৎসার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

তাঁর রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণে তারতম্য হওয়ায় মাঝে মাঝেই বায়োপ্যাপ সাপোর্ট প্রয়োজন হচ্ছে বলেও জানিয়েছে হাসপাতাল সূত্র।

তাঁকে ইনভেসিভ সাপোর্ট বা ভেন্টিলেশনে রাখার কথা ভাবনাচিন্তা করছেন চিকিৎসকরা। তবে তার আগে কিডনি ও স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিচ্ছে মেডিক্যাল টিম।

শনিবার রাত থেকেই শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসক অরিন্দম কর জানিয়েছেন, তার শারীরির অবস্থা ‘অত্যন্ত সংকটজনক’। টানা ১৯দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তিনি। রোববার বেশ কয়েকটি কঠিন সিদ্ধান্ত নেয়ার চিন্তা করছেন চিকিত্‍সক দল।

কলকাতার বেলভিউ নার্সিংহোমে (হাসপাতাল) সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় চিকিৎসাধীন। এ মাসের ৬ তারিখ থেকে তিনি ওই হাসপাতালের একটি কেবিনে চিকিৎসা নিচ্ছেন। কিন্তু এত দিন চিকিৎসায় তিনি সাড়া দিলেও গত পাঁচ দিন ধরে তার আচ্ছন্নতা বেড়েছে। অসংলগ্ন কথা বলছেন।

সৌমিত্রের চিকিৎসায় নিয়োজিত স্নায়ু বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে কথা বলেছেন দেশ–বিদেশের প্রখ্যাত স্নায়ু বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে।

তারা বলেছেন, কোভিড নেগেটিভ হওয়ার পরও সর্বোচ্চ ৯০ দিন পর্যন্ত কোভিড এনকেফ্যালোপ্যাথি থাকতে পারে। যদিও গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে স্নায়ু–সমস্যা প্রকট হওয়ায় বেড়ে যায় তার আচ্ছন্নতা। চিকিৎসকেরা এরপরই বাড়িয়ে দেন স্টেরয়েডের মাত্রা। বিশেষ করে তার প্রোস্টেট ক্যানসার এখন ছড়িয়ে পড়েছে তার মস্তিষ্কে।

অন্যদিকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সৌমিত্রের গ্লাসগো কোমা স্কেল অনেকটাই নেমে যাওয়ায় চিন্তিত হয়ে পড়েন তার মেডিকেল টিমের ১৬ চিকিৎসকই। এরপর বৈঠক করে সৌমিত্রের স্টেরয়েডের মাত্রা বাড়িয়ে দেন। একজন সুস্থ শরীরের মানুষের সাধারণত গ্লাসগো স্কেলের মাত্রা ১৫ থাকে।

পিসি/

Categories