Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

তৃণমূলের হামলার প্রতিবাদে শুভেন্দুর নীরব প্রতিবাদ

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

৮ই জানুয়ারি নন্দীগ্রামে সভা করতে গিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari)। শুভেন্দু অধিকারী সভার আগেই বিজেপির পতাকা ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।এছাড়া নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী সহায়তা কেন্দ্র অফিসে হামলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বিজেপির অভিযোগ ছিল তাদের অফিস কে কেন্দ্র করে প্রচুর ইট ছোড়া হয় জিনিষপত্র ভাঙচুর করে দুষ্কৃতীরা। বেশ কয়েকটি বাইক পুড়িয়ে দেওয়া হয়। তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরাই এই কাজ করেছে বলে অভিযোগ তোলে বিজেপি নেতৃত্ব।

প্রাক্তন বিধায়ক এবং নন্দীগ্রামের জনসভা কেন্দ্র দুষ্কৃতীদের হামলার প্রতিবাদে পথে নামেন শুভেন্দু অধিকারী আজ। একটি নীরব প্রতিবাদ মিছিল করা হয় শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে। ভোট যত এগিয়ে আসছে ততই বাড়ছে রাজনৈতিক উত্তাপ। অভিযোগ তুলছে এক পক্ষ অপর পক্ষের বিরুদ্ধে। পুরনো ইনিংস রেখে এখন নতুন ইনিংস খেলেছেন শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari)।শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের পর থেকেই শুভেন্দু অধিকারী কে কড়া ভাষায় আক্রমণ করে চলেছেন তৃণমূলের শীর্ষস্থানীয় নেতারা।

আরো পড়ুন : দলনেত্রীর বার্তা কী হবে ? সেইদিকেই তাকিয়ে সকলেই

তাঁকে বারবার বিশ্বাসঘাতক বলে কটাক্ষ করছেন তৃণমূলের শীর্ষস্থানীয় নেতারা।তৃণমূলের পক্ষ থেকে লাগাতার তাঁকে এবং বিজেপি (BJP) নেতা কর্মীদের ওপর হামলা করা হচ্ছে অভিযোগ তুলেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দু অধিকারী দাবি তৃণমূলের পায়ের তলার মাটি সরে যাচ্ছে তাই এই ধরনের আক্রমণ চালাচ্ছে।আবার অন্যদিকে নন্দীগ্রামের ঘটনার মতো পুরুলিয়া কাশিপুর বিজেপি নেতার শুভেন্দু অধিকারীর সভাতেও উত্তেজনা ছড়ায়। বিধানসভা ভোট হতে মেরেকেটে হাতে সময় আর হয়তো দু মাস।

তার আগেই নিত্যনতুন নাটকীয় ঘটনার উপস্থাপন হচ্ছে রাজ্য রাজনীতিতে।তার সাথে বিজেপিতে শুভেন্দু যোগদানের পর থেকে বাড়ছে রাজনৈতিক উত্তাপ।শুভেন্দু অধিকারী সহায়তা কেন্দ্রে হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রাম। শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছিলন শুভেন্দুর সহায়তা কেন্দ্রের ভাঙচুরের ঘটনায় পুলিশ কে জানানো হয়েছে। পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নিলে আগামী দিনে নন্দীগ্রামে আন্দোলনে নামবেন তারা। তাই আজ তারা নীরব প্রতিবাদে সামিল হয়েছে।২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে ফের আলোচনার শীর্ষে এখন নন্দীগ্রাম তা আবার ও স্পষ্ট হলো।