Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সরব সায়ন্তন বসু

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরে দলীয় সভা থেকে আবারও পুরনো মেজাজে দেখা গেল রাজ্য বিজেপির সাধারন সম্পাদক সায়ন্তন বসুকে (Sayantan Bose) । বিভিন্ন সময়ে বারবার বিতর্কিত মন্তব্য করে সমালোচনা কুড়িয়েছেন রাজ্য বিজেপির সাধারন সম্পাদক সায়ন্তন বসু (Sayantan Bose)। এবার দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরে দলীয় সভা থেকে তৃণমূল নেতাদের জিভ টেনে ছেঁড়ার নিদান দিলেন সায়ন্তন বসু। দলীয় সভা থেকে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ফের সরব হন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু (Sayantan Bose)।

রবিবার বিকেলে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বুনিয়াদপুর বাস স্ট্যান্ডে বিজেপির দলীয় কর্মসূচীতে যোগ দিয়ে সায়ন্তন বসু বলেন, ‘নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কোন হিন্দুকেই কোন পরিচয় পত্র দেখাতে হবে না। শুধু মুখ দিয়ে বলতে হবে আপনি হিন্দু। তাহলে আপনাকে হিন্দু বলে মেনে নেওয়া হবে। আর আপনাকে যদি তৃণমূল নেতা এনিয়ে ভুল বোঝায় যে হিন্দুদেরও প্রমানপত্র দিতে হবে৷ এমনকি হিন্দুদের বিতাড়িত করা হবে। এমন মন্তব্য তৃণমূল নেতা কর্মী করলে তার জিভ টেনে ছিঁড়ে দেওয়ার’ও কথা বলেন সায়ন্তন বসু। তিনি আরও বলেন, ‘কোন কাগজ কাউকে দেখাতে হবেনা। ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার কোন কাগজ ছাড়া সমস্ত হিন্দুদের নাগরিকত্ব দিয়েছে।

আরো পড়ুন : বোকা বানাচ্ছেন? নারী অত্যাচারের অফিসিয়াল রিপোর্ট কোথায়?:লকেট চ্যাটার্জী

ওপার বাংলা থেকে আগত সমস্ত অত্যাচারিত হিন্দুকে আমরা নাগরিকত্ব দিয়েছি। নাগরিক করার ব্যবস্থা করেছি।’ এদিনের সভায় সায়ন্তন বসু ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক তথা পশ্চিম্বঙ্গের পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় (Kailash Bijaybargiya) বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar) সহ অন্যান্য রাজ্য ও জেলা বিজেপি নেতৃত্বরা৷ বিধানসভা নির্বাচনের আগে আবারও নাগরিকত্ব আইন নিয়ে তৃণমূল-বিজেপির সংঘাত সামনে আসছে। তৃণমূলের তরফে যখন বলা হয়েছে নাগরিকত্ব আইন কিছুতেই লাগু করতে দেওয়া হবে না।

তখন অন্যদিকে, বিজেপির সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের (Shantanu Thakur)দাবি ছিল, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে (Amit Shah) ঠাকুরনগরে এসে নাগরিকত্ব আইন প্রয়োগ নিয়ে তার মতামত জানাতে হবে। এরপরই সূত্রের খবর যে, আগামী ১৯ বা ২০ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ঠাকুরবাড়িতে এসে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে তার মতামত জানাবেন। এর পাশাপাশি, মতুয়া সম্প্রদায়ের পুরো ভোটব্যাঙ্ক টানতে ইতিমধ্যেই বনগাঁকে আলাদা সাংগঠনিক জেলা হিসেবে ঘোষণা করেছে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব। বিজেপি সূত্রে খবর, শান্তনু ঠাকুরের দাবি মেনেই নতুন সাংগঠনিক জেলা করা হয়েছে। আর এবার নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ফের সরব হলেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু (Sayantan Bose)।