Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘২ তারিখ বলো হরি হরি বল বহিরাগত খাটে তোল’, কটাক্ষ অভিষেকের

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

আজ বালিতে জনসভা করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। নানান ভাবে ভারতীয় জনতা পার্টিকে কটাক্ষ করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন বিধানসভার নির্বাচন উন্নয়নের নিরিখে হওয়া উচিত।রাজনৈতিক দলগুলির উন্নয়নে নিরিখে রিপোর্ট কার্ড মানুষের কাছে নিয়ে যাওয়া উচিত এক পক্ষকে গ্রহণ করবে অন্য পক্ষকে বর্জন করবে মানুষ এটাই তো গণতন্ত্রের নীতি। অভিষেক বলেন, বিজেপি দাবি করছে তারা বিশ্বের বৃহৎ রাজনৈতিক দল। তর্কের খাতিরে ধরে নিলাম তাদের দল বড় ।

তৃণমূল কংগ্রেস ছোট দল, মাটির দল ,কৃষকের দল। তাহলে গত সাত বছরে কেন্দ্রীয় সরকার যা যা কাজ করেছে ,যা যা উন্নয়ন করেছে তা তুলে ধরা হচ্ছে না কেন প্রশ্ন তোলেন অভিষেক। তিনি বলেন তথ্য-পরিসংখ্যান সামনে রেখে লড়াই হোক। এক শূণ্য গোলে যদি হারিয়ে দিতে না পারি আমি রাজনীতি ছেড়ে দেবো। পাশাপাশি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আজ সাফ দাবি জানান আড়াইশোর বেশি আসন পাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস।

আরো পড়ুন : ‘কন্যাশ্রী মেয়েদের ডেকে নিন ওরা লড়াই করবে ‘, আরও এক নতুন দাওয়াই মমতার

বাংলায় যাদের অণুবীক্ষণ যন্ত্র দিয়ে দেখা যেত না তাঁরা দিল্লি ,গুজরাত থেকে ডেইলি প্যাসেঞ্জার হয়ে গেছেন। করোনার সময় করোনার ভয়ে রাস্তায় নামেনি। এখন যে করেই হোক বাংলা দখলের জন্য বারবার আসছেন। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় স্লোগান তোলেন, উড়ে যাবে ভাওতা থাকবে সততা বলছে বাংলার জনতা নবান্নে আবার মমতা।

২মে বল হরি হরি বল বহিরাগতদের খাটে তোল হবে।এবারের নির্বাচনে একদিকে যখন জয় শ্রীরাম স্লোগান নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস অভিযোগ তুলেছে তখন তৃণমূলের ‘জয় বাংলা’ স্লোগান নিয়েও বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছে এই স্লোগান বাংলাদেশের স্লোগান।এবারের নির্বাচনে তৃণমূল জিতলে পশ্চিমবঙ্গকে বাংলাদেশ বানাবে এই অভিযোগও তুলেছে বিজেপি নেতৃত্ব। আজ তার পাল্টা জবাব দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এক হাত নিয়ে বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ গিয়ে বাংলাদেশের মুখ্যমন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতির সামনে বলছেন ‘জয় বাংলা’। অথচ বাংলায় এই স্লোগানকে নিয়ে তাঁরা কটাক্ষ করছেন। এদের মেনে নেওয়া যায় না।ভোটের আবহাওয়ায় বিভিন্ন সভা থেকে তৃণমূল বিজেপি এক পক্ষ অপর পক্ষকে নানান দিক থেকে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ চালাচ্ছে যা ঘিরে এখন উত্তপ্ত বাংলার রাজনীতি।