রাধা কৃষ্ণের গান, বিতর্ক ছড়িয়ে পড়লো বাংলাদেশে !

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

সর্বত মঙ্গল রাধে বিনোদিনী রাই
বৃন্দাবনের বংশিধারী ঠাকুরও কানাই
একলা রাধে জল ভরিতে যমুনাতে যায়
পেছন থেকে কৃষ্ণ তখন আড়ে আড়ে চায়।।

গানের এই কটা লাইন সকলেরই চেনা।
হ্যাঁ, এটি জনপ্রিয়সংগীত ‘সর্বত মঙ্গল রাধে’-র কয়েকটি লাইন।

নতুন করে এই গানটির সংগীতায়োজন করা হয়েছে। নতুন করে এই বিখ্যাত গানটির মিউজিক অ্যারেন্জমেন্ট করেছেন সঙ্গীতশিল্পী পার্থ বড়ুয়া। আর নতুন করে সংগীতায়োজন করা এই গানে কণ্ঠ দিয়েছেন অভিনেত্রী তথা সংগীতশিল্পী মেহের আফরোজ শাওন ও চঞ্চল চৌধুরী। ২০ অক্টোবর গানটি ইউটিউবে প্রকাশ পায়। রাধা আর কৃষ্ণের প্রথমদর্শনের অনুভূতি নিয়ে রচিত এই গানটি প্রকাশের পরই সকলের মন ছুঁয়ে গেলেও, কপিরাইট ইস্যুতে তৈরি হয় বিতর্ক।

জানা যায়, মেহের আফরোজ শাওন ও চঞ্চল চৌধুরীর গাওয়া গানটি ২০ অক্টোবর ইউটিউবে প্রকাশ পেলেও ২১ শে অক্টোবর গানটি সরিয়ে দেওয়া হয়। জানা যায়, এই গানটির কপিরাইট দাবি করে শরলপুর ব্যান্ড। যদিও জানা যায় যে, মেহের আফরোজ শাওন ও চঞ্চল চৌধুরীর গাওয়া গানটির সংগীতায়োজন করেছেন পার্থ বড়ুয়া।


অন্যদিকে, শরলপুর ফোক ব্যান্ডের তরফে দাবি করা হয় যে, মেহের আফরোজ শাওন ও চঞ্চল চৌধুরীর গাওয়া ‘যুবতী রাধে’ গানটির অরিজিন্যাল ট্র্যাক তাদের। এই গানটি যে তাদের নিজস্ব তারও বৈধ কাগজপত্র তাদের রয়েছে বলে শরলপুর ব্যান্ডের তরফে দাবি করা হয়। অন্যদিকে, আরও একটি দলের তরফে বলা হয় যে, মৈমনসিংহ গীতিকা থেকে এই গানটি সংগৃহীত।


এরপর, শরলপুর ব্যান্ডের তরফে গানটি কিছুটা পরিবর্তন করে নিজেদের অরিজিন্যাল ট্র্যাক বলে দাবি করা হয়। এই বিতর্কের বিষয় সঙ্গীতশিল্পী চঞ্চল চৌধুরী জানান, এই গানটির বিষয় ইউটিউবকে সরাসরি না জানিয়ে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে নিশ্চয়ই সমস্যাটি বিবেচনা করে দেখা হত। এই বিষয়ে আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডে যারা এই গানটিকে নতুন করে ইউটিউবে প্রকাশ করেছিলেন তাদের তরফে জানানো হয়েছে তারা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছেন।

Categories