Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

৩৫৬ ধারা জারির পক্ষে সওয়াল কৈলাশ বিজয় বর্গীয়র

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

পঞ্চায়েত জনপ্রতিনিধি সম্মেলনের শেষে মালদায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারন সম্পাদক কৈলাশ বিজয় বর্গীয় (Kailash Bijaybargiya)। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘সব চেয়ে বড় সভা জনসভা। সেখানে বিস্বাস হারিয়ে ফেলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
রাজ্যে অস্তিত্ব বাঁচাতে লড়াই করছে সিপিএম এবং কংগ্রেস’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, ‘কেরলে আবার কংগ্রেস সিপিএমের মধ্যে বিরোধ রয়েছে । এখানে দুজনে মিলে কার সঙ্গে লড়ছে মমতা জির সঙ্গে। অন্যদিকে দিল্লিতে কৃষক আন্দোলনে কারা নেতৃত্ব দিচ্ছে বামপন্থীরা। সেই আন্দোলনকে সমর্থন করতে কে যাচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাঁচ সাংসদ।’ এছাড়াও রাজ্য সরকারের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সমালোচনা করেন তিনি।

পাশাপাশ নির্বাচন নিয়ে কৈলাশ বিজয় বর্গীয়র (Kailash Bijaybargiya) মন্তব্য, ‘নির্বাচনকে কমিশনকে জবাবদিহি করতে হবে এই রাজ্যে সাধারন ভোটাররা নির্ভীকভাবে ভোটদান করতে পারবে। যদি নির্বাচন কমিশন এই দায়িত্ব নেয় তাহলে ঠিক আছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘তিনি নির্বাচন কমিশনকে বলেছেন, এখানে এমন ব্যবস্থা করা হোক যাতে কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে আসা হোক এখানে নিরপেক্ষ নির্বাচন করা হোক। না করতে পারলে ৩৫৬ জারি করে নিরপেক্ষ নির্বাচন করার’ কথা বলেন তিনি।

পাশাপাশি বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলির (Sourabh Ganguly) শারীরিক অসুস্থতার বিষয় বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারন সম্পাদক কৈলাশ বিজয় বর্গীয় (Kailash Bijaybargiya) জানান, ‘সকলেই চিন্তিত তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে তিনি মালদায় আসার কারনে প্রচার বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাকেশ সিং কে সহ সকলের ওখানে যাওয়ার কথা জানান তিনি।’ পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, ‘গৃহমন্ত্রী সবরকমের ভালো চিকিৎসা দেওয়ার কথা জানিয়েছেন দিল্লির কোন ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ নেওয়ার দরকার হলে সেকথাও জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি। পাশাপাশি দরকার পড়লে Air mbulance করে দিল্লিতেও নিয়ে যাওয়ার কথা জানান তিনি।’

‘ওনার সঙ্গে কথা না হলেও কার্যকর্তাদের সঙ্গে ডোনা গাঙ্গুলির কথা হয়েছে বলেও জানান তিনি। নড্ডা জি থেকে শুরু করে গৃহমন্ত্রী থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় সরকারের সকলেই সৌরভ গাঙ্গুলির জন্যও চিন্তিত যে কোন medical help দরকার পড়লে তারা সবরকম সাহায্য করবে বলে ডোনা গাঙ্গুলিকে জানানো হয়েছে’ বলে জানান কৈলাশ বিজয় বর্গীয় (Kailash Bijaybargiya)। পাশাপাশি ‘কয়লা থেকে গরু পাচার কান্ডে রাজ্য প্রশাসনের ২০জন আধিকারিক যুক্ত রয়েছেন সিবিআই-এর তদন্তে এমন তথ্য উঠে এসেছে’ বলেও জানান তিনি। পাশাপাশি বিশ্বভারতী নিয়ে তার মন্তব্য, ‘শান্তিনিকেতনে এই দেশের গৌরবময় পরম্পরার একটা অংশ। আমি চাইনা ওই বিষয়ে কোন অশান্তি হোক। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে শ্রদ্ধা জানাতে আর তার ক্রিয়াশীলতাকে তার শিল্পকলাকে দেখতে সেখানে গিয়েছিলেন গৃহমন্ত্রী। রাজ্য সরকার জবরদস্তি সেই ঘটনাকে বিবাদে জড়িয়েছে। এই সব সংস্থা ভারতের মান বিশ্বে বাড়ায়। এই সব সংস্থাকে নিয়ে অশান্তি করা উচিত নয়। এই সব সংস্থাকে নিয়ে বিবাদ বাধালে বিশ্বের দরবারে ভারতের মান ছোট হয়।’ বলেও মন্তব্য করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারন সম্পাদক কৈলাশ বিজয় বর্গীয় (Kailash Bijaybargiya)।