Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বিবেকানন্দকে টেনে নামাচ্ছে, কী বললেন ব্রাত্য বসু

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

ধর্ম কারোর ব্যক্তিগত হতে পারে । কিন্তু ধর্মকেন্দ্রিক উৎসব সকলে র।আমাদের সরকার সারা রাজ্যব্যাপী বিবেক চেতনা উৎসব পালন করে থাকে।মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে বিবেকানন্দের বন্দনায় এটা আমাদের রাজ্যে অভিনব ঘটনা। মনীষীদের আরও সম্মান বাড়িয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সব ধর্মের সম্মেলনের সমানভাবে অংশ নেন মুখ্যমন্ত্রী। তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠক থেকে এমনটাই দাবি জানান তৃণমূল নেতা ব্রাত্য বসু। তিনি জানান ১০ ই জানুয়ারি থেকে ১২ জানুয়ারি দেশব্যাপী বিবেক চেতনা উৎসব তৃণমূলের। স্বামী বিবেকানন্দের পৈত্রিক ভিটে রাজ্য সরকার অধিগ্রহণ করে তা তুলে দিয়েছে রামকৃষ্ণ মিশনের হাতে। বাগবাজারের সারদা মায়ের বাড়ি কে হেরিটেজ ঘোষণা করে রাজ্য সরকার।

ভগিনী নিবেদিতার বাড়ি ও রাজ্য সরকার অধিগ্রহণ করেছে। তাকে হেরিটেজ তকমা দেওয়া হয়েছে। রাজ্য সরকার স্কাইওয়াক তৈরি করেছে। যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন এর নাম রাজ্য সরকার বদলেছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নাম রেখেছেন বিবেকানন্দ যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন। পাশাপাশি তিনি বলেন শিকাগোতে মুখ্যমন্ত্রী যাওয়ার কথা ছিল শেষ মুহূর্তে তা বাতিল করা হয়। অক্সফোর্ডে ও মুখ্যমন্ত্রীর শেষ মুহূর্তের অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়। এগুলো স্বাভাবিক ঘটনা নয়।সুট বুট পড়া লোকেরা কল কাঠি নেড়েছেন বলেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই অনুষ্ঠান গুলি শেষ মুহূর্তে বাতিল হয়েছে বলে তিনি মনে করেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) ই বাংলার ঐতিহ্য সংস্কৃতি কৃষ্টি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তুলে ধরেছেন যা অতুলনীয়।

ব্রাত্য বসুর অভিযোগ বিজেপি রামকৃষ্ণ, নজরুল ইসলাম, চৈতন্যদেব, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নিয়ে ভুল তথ্য দিচ্ছে । বিবেকানন্দ নিয়েও ভুল তথ্য দিয়েছে বিজেপি। দৈনন্দিন রাজনীতিতে বিবেকানন্দকে টেনে নেমে আনছে বিজেপি। কিন্তু আমরা তাকে মাথার উপর তুলে রেখেছি। প্রসঙ্গত আগামী কাল বিবেকানন্দের জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষে বিজেপি বিবেকের ডাকে কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। শুভেন্দু অধিকারী নেতৃত্বে বিজেপি কলকাতায় একটি পদযাত্রা করবে। আবার অন্যদিকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বে একটি পদযাত্রা করবে তৃণমূল যুব কংগ্রেস। একুশের ভোটের আগে বাংলায় মনীষীরা যেন রাজনৈতিক লড়াইয়ে হাতিয়ার হতে চলেছে। বিধানসভা নির্বাচনের আগে বাংলার সংস্কৃতি ঐতিহ্য কৃষ্টি থেকে মনীষীদের সম্মান জানানো কে কেন্দ্র করে বিজেপি তৃণমূলের মধ্যে তরজা যেন ক্রমশই বাড়ছে।

(ব্রাত্য বসুর সাংবাদিক বৈঠক)