সরকারি বিধি মেনে পুজো শুরু বাগবাজার সর্বজনীনের

।। শর্মিলা মিত্র ।।

প্রত্যেক বারের থেকে এবছর দুর্গাপুজোর ছবিটা কোথাও যেন একটু আলাদা। করোনা আবহের মধ্যে সরকারি নিয়মবিধি মেনে পালিত হচ্ছে এবছরের দুর্গোৎসব। অন্যবারের থেকে একটু অন্যরকম ছবি এবার বাগবাজার সর্বজনীন দুর্গোৎসব পুজো মণ্ডপেও। হাইকোর্টের নির্দেশিকা মেনেই চলছে পুজোর প্রস্তুতি।

মহাষষ্ঠীর সকালেই পুজোমণ্ডপে দেখা গেল সরকারি বিধি মেনে চলার ছবি। দর্শকদের ভিড় খুবই কম। দেখা গেল বেশিরভাগ দর্শনার্থীরা মাস্ক পড়েই প্রতিমা দর্শন করতে এসেছেন। পাশাপাশি, একটু অন্যরকম ছবিও উঠে এল। বেশ কিছু দর্শনার্থীকে বিনা মাস্ক পড়েও দেখা গেল ষষ্ঠীর সকালে।

কলকাতার পুজোগুলির মধ্যে বাগবাজার সর্বজনীনের বনেদিয়ানা কোথাও যেন অন্যদের থেকে আলাদা। সাবেকি ডাকের সাজের একচালার মাতৃপ্রতিমা প্রত্যেকবছরই নজর কাড়ে দর্শনার্থীদের। মায়ের গায়ের রং অতসী। অসুর সবুজ। বরাবর এই একই প্রতিমা গড়ে আসছে এই বারোয়ারি পুজো কমিটি। কোন থিমের চমক না করেই বাঁধাধরা নিয়ম মেনেই পুজো হয়ে আসছে এখানে।

আরো পড়ুন : বিসর্জনের দূষণ এড়াতে পর্ষদের নয়া নিদান

ইতিহাসের পাতা ওল্টালে জানা যায়, এই পুজোর সূত্রপাত হয়েছিল ১৯১৯ সালে।

প্রথম এই পুজো শুরু হয় নেবুবাগান লেন ও বাগবাজার স্ট্রিটের মোড়ে ৫৫ নম্বর বাগবাজার স্ট্রিটে । তখন এই পুজোর নাম ছিল ‘নেবুবাগান বারোয়ারি দুর্গা পুজো’।ওইখানে কয়েকবছর পুজো হওয়ার পর ১৯২৪ সালে পুজোটি সরে যায় বাগবাজার স্ট্রিট ও পশুপতি বোস লেনের মোড়ে। পরের বছর পুজো হয় কাঁটাপুকুরে। এরপর আবারও জায়গা পরিবর্তন করে ১৯২৭ সালে এই পুজো অনুষ্ঠিত হয় বাগবাজার কালীমন্দিরে।

এরপর, ১৯৩০ সালে বিখ্যাত আইনজীবী দুর্গাচরণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে নতুন রূপে পুজো শুরু হয়। নাম হয় ‘বাগবাজার সার্বজনীন দুর্গোৎসব ও প্রদর্শনী’। জানা যায়, ১৯৩৬ সালে এই পুজোর সভাপতি হন সুভাষচন্দ্র বসু। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে বহু প্রথিতযশা ব্যক্তি বাগবাজার সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির পুজোর সঙ্গে জড়িয়েছেন।

প্রত্যেক বছর একই রকমের প্রতিমা দেখতে হাজার হাজার মানুষ ভিড় জমান বাগবাজারের মণ্ডপে।বাগবাজার সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির পুজোর সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হল সিঁদুর খেলা। বিজয়ার দিন সকাল থেকেই লাইন পড়ে যায় এখানে। দূরদূরান্ত থেকে মহিলারা আসেন এখানে দেবী দুর্গাকে সিঁদুর পড়াতে। দেবী দুর্গাকে সিঁদুর দেওয়ার পর নিজেদের মধ্যে সিঁদুর খেলায় মেতে ওঠেন তারা। কিন্তু এবছর নিউ নর্ম্যালে সরকারি বিধি মেনে পালিত হচ্ছে দুর্গোৎসব। তাই কোথাও যেন প্রত্যেক বছরের থেকে একটু অন্যরকমভাবেই পালিত হচ্ছে এবারের শারোদৎসব।

Categories