পুজো কমিটিগুলিকে অনুদানের হিসাব দিতে হবে, নির্দেশ হাইকোর্টের

।। প্রথম কলকাতা ।।

পুজো কমিটি গুলিকে সরকারের দেওয়া অনুদানের বিরোধিতা করে হাইকোর্টে মামলা দায়ের হয়েছিল। এ দিন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অরিজিত বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ অন্তর্বর্তী রায় দিয়েছেন। তাঁরা জানিয়েছেন পুজোর পরে ফের এই মামলা তারা শুনবেন। হাইকোর্ট অন্তর্বর্তী রায় জানিয়েছে সরকারের দেওয়া টাকা পুজো কমিটিগুলো আলংকারিক কোনো খরচে ব্যবহার করতে পারবে না।

পুলিশ জনতা সমন্বয় এবং করোনা মোকাবিলার কাজে ওই টাকা ব্যবহার করতে হবে। ক্লাব এবং পুজো কমিটি গুলোর থেকে সরকারকে সরকারি টাকা খরচের হিসাব সংগ্রহ করতে হবে এবং সেটা আদালতে পেশ করতে হবে। ডিভিশন বেঞ্চ এ নির্দেশ দিয়েছে সরকারের কাছ থেকে পাওয়া ৫০ হাজার টাকার ২৫ শতাংশ পুলিশ জনগণের জন্য খরচ করবে বাকি ৭৫ শতাংশ টাকা কোভিড মোকাবিলার জন্য স্যানিটাইজার এবং মাস্ক কিনে দর্শনার্থীদের দেওয়ার জন্য খরচ করতে হবে।

আরো পড়ুন : মমতার ওপর চাপ বাড়ছে, নবান্নের সামনেই আমরণ অনশনে বলবিন্দরের স্ত্রী !

বিচারপতি মন্তব্য করেন বাম শাসনকাল এবং এই শাসনকালে আমলাতন্ত্রের মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়া হয়েছে। আমলারা যদি দক্ষ হতেন এই সমস্যার সমাধান করা যেত। সরকারি আইনজীবী আদালতকে জানান ওই টাকা পুলিশের পক্ষ থেকে ক্লাবগুলোকে দেওয়া হচ্ছে ভিড় নিয়ন্ত্রণ এবং সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ প্রকল্প বাস্তবায়িত করার জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য।

দুই বিচারপতি বলেন ক্লাবগুলোকে কিভাবে টাকা দেওয়া হচ্ছে তার হিসাব রাখা প্রয়োজন। মহাকুমা শাসকদের এই দায়িত্ব দেওয়া যেতে পারে। লক্ষ্মী পুজোর পরে এই মামলা ফের শুনবেন এবং চূড়ান্ত রায় দেবেন বলে জানিয়েছেন দুই বিচারপতি। এর আগে রাজ্য সরকার জনগণের করের টাকা পুজো খাতে ক্লাবগুলোকে দান করতে পারে কিনা সেই প্রশ্ন হাই কোর্টে তোলা হয়েছিল।