সংখ‍্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দিন,চ‍্যালেঞ্জ সচিনের

।। রাজীব ঘোষ ।।

পরিষদীয় দলের বৈঠকের পরে অশোক গহলৌত শিবিরের বিধায়করা আঙ্গুল তুলে ভিকট্রি সাইন দেখান। কংগ্রেসের দাবি সরকার পুরো মেয়াদ টিকবে।বিধায়কদের রিসর্ট বন্দি করলেও আয়কর বিভাগ এর হানাদারির সম্ভাবনার কথা মাথায় রাখছে গহলৌত শিবির। কংগ্রেসের দাবি 102 জন বিধায়ক কংগ্রেসের পরিষদীয় দলের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী সরকারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। সেই সময় গুরুগ্রাম থেকে বিদ্রোহী উপমুখ্যমন্ত্রী সচিন পাইলট বলেন অশোক গহলৌতের দাবি ভুল।

আমার পাশে 25 জন বিধায়ক বসে রয়েছেন। আমরা কেউ কংগ্রেসের পরিষদীয় দলের বৈঠকে যোগ দিতে যাইনি। রাজস্থান কংগ্রেসের তরফে ইতিমধ্যেই বিধায়কদের একজোট রাখার তৎপরতা শুরু হয়ে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত কংগ্রেস বিধায়ক দের উদ্দেশ্যে হুইপ জারি করে ছিলেন বৈঠকে হাজির হওয়ার জন্য। গরহাজির দের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন তিনি। তা সত্বেও বেশকয়েকজন বিধায়ক বৈঠকে ছিলেন না।

সচিন বলেছেন গহলৌতের সঙ্গে 84 জনের বেশি বিধায়ক নেই। বাকিরা আমার পাশে রয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তার চ্যালেঞ্জ প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলে রাজ্যপালের কাছে প্রমাণ পেশ করুন। জয়পুরে হাজির সোনিয়া গান্ধীর দূত রনদীপ সূর্যেওয়ালা সকালে কংগ্রেস সভানেত্রী এবং রাহুলের সঙ্গে আলোচনা করে সমস্যা মেটানোর জন্য সচিনকে বার্তা দিয়েছেন। যদিও সচিনের সঙ্গে কোনো কথা হয়নি বলেই জানা গিয়েছে।

রাজস্থান বিধানসভার 200 টি আসনের মধ্যে কংগ্রেসের বিধায়ক সংখ্যা 107 সিপিএমের দুই ভারতীয় ট্রাইবাল পার্টির 2 আর এল ডির 1 এবং 12 জন নির্দল এর সমর্থন ছিল অশোক গহলৌত সরকারের দিকে। কংগ্রেস এবং নির্দল মিলিয়ে সচিনের দিকে 16 জনের সমর্থন রয়েছে বলে সূত্রের খবর। কংগ্রেসের দাবি মোট 109 জন বিধায়কের সমর্থন এর চিঠি রয়েছে গহলৌতের কাছে। সূত্রের খবর সচিন সমঝোতার জন্য তিনটি শর্ত দিয়েছেন।

অর্থ এবং স্বরাষ্ট্র দপ্তর তার শিবিরকে দিতে হবে। তার অনুগামী চার বিধায়ক কে মন্ত্রী করতে হবে এবং উপমুখ্যমন্ত্রী পদের পাশাপাশি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদে বহাল রাখতে হবে। কংগ্রেস নেতৃত্ব সচিনের প্রস্তাব মানতে পারবেন কিনা সেই বিষয়ে সংশয় রয়েছে। কারণ পরিষদীয় পাটিগণিত বলছে এখনও মরু রাজ্যের বেশিরভাগ কংগ্রেস বিধায়ক অশোক গহলৌতের পাশে রয়েছেন।