সপ্তাহের দ্বিতীয় লকডাউনেও কড়া পুলিশ

। প্রথম কলকাতা ।

শনিবারও তৎপরতা বেড়েছে পুলিশ মহলে। রাস্তার মোড়ে মোড়ে চলল নাকা চেকিং, নিয়মভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা, ড্রোন উড়িয়ে পাড়ার অলিগলিতেও রাখা হচ্ছে নজরদারি। তবে বৃহস্পতিবারের লকডাউনের মতো নিয়ম মেনে চলায় ততটা দায়বদ্ধতা দেখা গেল না শহরবাসীর মধ্যে। বরং সকাল থেকে উলটো ছবি শহরের বিভিন্ন প্রান্তে। অনেকেই রাস্তায় নেমে পড়েছেন নিয়মের তোয়াক্কা না করে।

এদিন সাতসকালেই নিউটাউনের বিভিন্ন এলাকায় গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে পড়েন জনা কয়েক যুবক। রাস্তায় ঘোরাঘুরি করার কারণে পুলিশ তাদের গাড়ি আটকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। আটক হয়েছে ৩ টি গাড়িও। একই ঘটনার রেশ বজায় থাকলো উত্তর শহরতলীর বাগুইআটি এলাকাতেও। অহেতুক রাস্তায় ঘোরাঘুরি করার জন্য পত্রপাঠ তাঁদের বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে রাস্তায় টহলরত পুলিশ।

পার্কসার্কাস, পার্কস্ট্রীট, ধর্মতলায় সহ প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে নাকা চেকিং চলছে। গাড়ি, বাইক এমনকি সাইকেলও চেকিং ও জিজ্ঞাসাবাদ করার পরেই ছাড়া হচ্ছে। প্রাতভ্রমনকারীদেরও এদিন বাড়ি ফেরত পাঠানো হয়েছে। তবে জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীদের যাতায়াতের ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়। নজরদারির সময় কাউকে লকডাউন বিধি ভঙ্গ করতে দেখলে প্রাথমিক ভাবে বোঝানো হয়, তারপরও যারা পুলিশের অবাধ্য হচ্ছে তাদের সরাসরি গ্রেপ্তার করা হয়।

গতকালও দিনভর মাস্ক না পড়া, জনসমক্ষে থুথু ফেলা সহ নানাভাবে আইনভঙ্গ করার দায়ে, প্রায় 450 জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরমধ্যে, বিপর্যয় মোকাবিলা আইন ভঙ্গ করার জন্য 278 জন, 141 জনকে মাস্ক না পড়ার জন্য এবং 14 জনকে প্রকাশ্যে থুথু ফেলার কারণে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত গত কয়েকদিনে প্রায় 2500 জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।