Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এবার কী রাজ্যপালের দৌড়ে শিশির অধিকারী ?

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

বয়স ৮০-র গন্ডি পেরোলেও শারীরিক ভাবে তিনি এখনও যথেষ্ট শক্তসমর্থ। রাজনৈতিক ভাবেও সক্রিয় তিনি। কিছুদিন আগেই কাঁথিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সভায় গিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে নাম লেখান তিনি। তিনি শিশির অধিকারী।

মেজো পুত্র শুভেন্দু অধিকারী ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করার পর থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব বাড়ছিল তৃণমূল কংগ্রেসের কাঁথির সাংসদ শিশির অধিকারীর। এরপর সেই দূরত্ব আরও বাড়িয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখান শিশির অধিকারী।

তবে, তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে পাকাপাকিভাবে সব সম্পর্ক ছিন্ন করলেও এখনও তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ। যদিও জানা যাচ্ছে যে, রাজ্যে বিধানসভা ভোট মিটলে তৃণমূল কংগ্রেস তাঁর সাংসদপদ খারিজের জন্য লোকসভার স্পিকারের কাছে আবেদন জানাবে। এমনটাই সূত্রের খবর।

এবার রাজ্যপাল হওয়ার দৌড়ের নাম ঢুকে গেল শিশির অধিকারীর।সূত্রের খবর, প্রবীণ রাজনীতিবিদ তথা সাংসদ শিশির অধিকারীকে রাজ্যপাল করার বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে ভাবনাচিন্তা করছে কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে এই খবর সামনে এসেছে।

জানা গিয়েছে, দেশের পূর্বাঞ্চলে পশ্চিমবঙ্গ লাগোয়া দুটি রাজ্য কেন্দ্রীয় সরকারের ভাবনায় রয়েছে। যদিও শিশির অধিকারী নিজে ওই বিষয়ে এখনও আনুষ্ঠানিক ভাবে কিছু জানেন না। তবে তাঁর কাছে রাজ্যপাল হওয়ার প্রস্তাব এলে তিনি তা ফেরাবেন না বলেই তাঁর ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর।জানা গিয়েছে যে, পদ্ম শিবির শিশির অধিকারীকে ‘সম্মানজনক পুনর্বাসন’ দিতে চায় বলেই এই রাজ্যপাল করার ভাবনা।

বিজেপি সূত্রে আরও জানা গিয়েছে যে, ওঁর বয়স হয়েছে। এই অবস্থায় ওঁকে আর কোনও রাজনৈতিক বিড়ম্বনায় পড়তে হোক, সেটা বিজেপি চায় না। তাই এই প্রবীণ এবং অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদকে রাজ্যপাল করার ভাবনা। যদিও এই সিদ্ধান্তের একপিঠে যেমন রয়েছে শিশির অধিকারীর সম্মানজনক পুরনর্বাসন, তেমনই অন্যপিঠে রয়েছে কাঁথি আসনটি সরকারি ভাবে বিজেপি-র খাতায় নিয়ে আসা, এমনটাই মত রাজনৈতিক মহলের একাংশের।

কারণ, শিশির অধিকারীকে যদি শেষপর্যন্ত রাজ্যপাল করা হয়, তা হলে তাঁকে কাঁথির সাংসদের পদ থেকে পদত্যাগ করতে হবে। সেক্ষেত্রে দ্বিতীয় যে প্রশ্নটি উঠে আসে, সেটি হল, কাঁথি আসনে যে উপনির্বাচন হবে, তাতে বিজেপি-র হয়ে প্রার্থী কে হবেন ? এই প্রশ্নের জবাবে বিজেপি-র নেতাদের অবশ্য দাবি, ‘দল যাঁকে কাঁথি আসনে মনোননয় দেবে, তিনিই সেখানে সাংসদ হওয়ার ভোটে লড়বেন।’ কিন্তু গেরুয়া শিবিরের একান্ত আলোচনায় উঠে আসছে যে, ওই আসনে লড়তে পারেন শিশির অধিকারীর ছোটপুত্র সৌম্যেন্দু অধিকারী।

কারণ, শুভেন্দু অধিকারী বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার পরই ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেন সৌম্যেন্দু অধিকারী। সেক্ষেত্রে সৌম্যেন্দু অধিকারীকেও ‘পুনর্বাসন’ দেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। সৌম্যেন্দু অধিকারী ওই আসনে জিতলে একদিকে আসনটি যেমন অধিকারী পরিবারের হাতেই থাকবে, তেমনই অন্যদিকে বিজেপি-রও রাজ্যে ‘সরকারি ভাবে’ আরো একটি আসন বাড়বে। এমনটাই মত ওয়াকিবহাল মহলের।