উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন কোমায় !

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ডেস্ক ।।

উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন কোমায় রয়েছেন বলে চাঞ্চল্যকর দাবি করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার এক প্রাক্তন কূটনীতিক। ছাং সং-মিন নামের ওই কূটনীতিকের দাবিকে কেন্দ্র করে কিম জং উনের শারীরিক অবস্থা নিয়ে নতুন করে ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রয়াত প্রেসিডেন্ট কিম দায়ে-জুংয়ের সাবেক এক সহযোগী ছাং সং-মিন দাবি করেছেন, উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন গুরুতর অসুস্থ এবং তিনি কোমায় রয়েছেন। ছাং সং-মিন আরো দাবি করেছেন, গুরুতর অসুস্থতার কারণেই কিম জং উন সম্প্রতি কিছু ক্ষমতা তাঁর বোন কিম জং ইয়োর হাতে তুলে দিয়েছেন। যে কারণে কিম জং ইয়ো এ মুহূর্তে হয়ে উঠেছেন উত্তর কোরিয়ার দ্বিতীয় সবচেয়ে ক্ষমতাশালী ব্যক্তি। সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজ এ খবর জানিয়েছে।

কিম জং উনের পর যদি তাঁর বোন কিম জং ইয়োর হাতে উত্তর কোরিয়ার শাসনভার যায়, তাহলে প্রথমবারের মতো একজন নারী উত্তর কোরিয়াকে নেতৃত্ব দেবেন।ফক্স নিউজ জানিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টে দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক কূটনীতিক ছাং সং-মিন বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার শাসকরা সহজে ক্ষমতা ছাড়েন না। কেবল গুরুতর অসুস্থতা বা সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে পদ থেকে সরিয়ে না দেওয়া পর্যন্ত তাঁরা গদি আঁকড়ে ধরে থাকেন।

অতীতে উত্তর কোরিয়ার কোনো শাসক স্বাভাবিক অবস্থায় অন্য কারো হাতে ক্ষমতা তুলে দেননি। উত্তর কোরিয়ার বর্তমান শাসক কিম জং উন এর ব্যতিক্রম হবেন, এমন আশা করা যায় না বলে মন্তব্য করেছেন ছাং সং-মিন। এর আগে কিম জং উন সম্পূর্ণ শয্যাশায়ী হয়ে পড়েছেন বলে দাবি করেছিলেন ছাং। নিজের সে দাবি আরো একবার মনে করিয়ে দিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক এই কূটনীতিক।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছাং লিখেছেন, ‘আমার ধারণা, উনি (কিম জং উন) কোমায় চলে গেছেন। তবে তিনি এখনো জীবিত আছেন। কারণ, কিমের উত্তরসূরি নির্বাচনের কাজ এখনো শেষ হয়নি। আর দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় শূন্যতা বজায় রাখা যায় না। অসুস্থতার কারণে কিম জং উন নিজের হাত থেকে ক্ষমতার রাশ ক্রমেই আলগা করছেন। তিনি কিছু কিছু ক্ষমতা বোনের হাতে তুলে দিচ্ছেন।’এদিকে, কিম জং উনের অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়ায় তৎপর হয়ে উঠেছে উত্তর কোরিয়া।

গত কয়েক মাসে নিজেদের দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের বেশ কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে তারা। সেইসঙ্গে দাবি করা হচ্ছে, কিম জং উন সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। যদিও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রয়াত প্রেসিডেন্ট কিম দায়ে-জুংয়ের সাবেক সহযোগী ছাং সং-মিনের দাবি, উত্তর কোরিয়ার প্রকাশ করা কিম জং উনের ওই সব ছবি ভুয়া।উত্তর কোরিয়ার সংবাদমাধ্যমের দাবি, সম্প্রতি দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনায় বৈঠকে বসেছিলেন কিম।