Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

আব্বাস সিদ্দিকীকে পীরজাদা বলে কেউ দেখবে না, কটাক্ষ ত্বহা সিদ্দিকীর

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

২০২১ বিধানসভা নির্বাচন। একপ্রকার বলাই যায় জমে উঠেছে। একদিকে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস অন্যদিকে প্রতিপক্ষ বিজেপি, তার পাশাপাশি রয়েছে কংগ্রেস-সিপিএম জোট। আর এবার বিহার নির্বাচনের পর বাংলায় উঁকি মারছে মিম। অন্যদিকে, নতুন বছরের বাংলায় নতুন রাজনৈতিক দলের অভ্যুথ্থানের কথা আগেই জানিয়েছিলেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী (Abbas Siddiqui)। আর সেই দলে যোগ দেওয়ার কথাও ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন মিম (AIMIM) প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি (Asaduddin Owaisi)। আর এবার নতুন দল ঘোষণার দিনক্ষণও জানিয়ে দিলেন আব্বাস সিদ্দিকী (Abbas Siddiqui)। ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী জানিয়েছেন, ২০২১ এ বিধানসভা নির্বাচন।

তাই ২১ তারিখ টিকে গুরুত্ব দিয়ে বাংলায় নতুন রাজনৈতিক দলের পথ চলা শুরু হবে আগামী ২১ শে জানুয়ারি। আর এরপরই নতুন দল ঘোষণার বিষয়ে মুখ খুললেন ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui)। আব্বাস সিদ্দিকী ২১ তারিখ নতুন দল ঘোষণা করবেন জানানের পর পীরজাদা ত্বহা সিদ্দিকী কটাক্ষ করে বলেন, ‘২১ তারিখ টা ফুরফুরা শরিফের কালো দিন। সত্যিকারের যদি উনি দল ঘোষণা করেন তাহলে ফুরফুরার মানুষের জন্য ফুরফুরাকে যারা ভালো বাসেন জাতি, ধর্ম,বর্ণ নির্বেশেষে ওই দিনটিকে তাদের জন্য কালো দিন হিসাবে ঘোষণা করব।’ বলে মন্তব্য করেন ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui)। তার কটাক্ষ, ‘কতটা ২১শে ২১ করবে আমার বিশ্বাস হয়না।’

তিনি আরও বলেন, ‘উনি লরেন্স সিটি করছেন বহু দিন ধরে মানুষকে এই করব ওই করব করে ওটা ভাঁটা পড়ে গেছে, উনি আবার রাজনীতি করবেন। একটা দল করবেন।’ তার কটাক্ষ, ‘ডিসেম্বরের ১৫, ডিসেম্বরের ১৮, ডিসেম্বরের ২৬ করতে করে জানুয়ারি চলে এল আবার জানুয়ারির ৬ না ৭ আবার ২১।’ তার মন্তব্য, ‘করে দিক না করলে খুব ভালো হয়’। পাশাপাশি তার মন্তব্য, ‘বাংলার মানুষ সম্প্রীতির মানুষ, সম্প্রীতির জন্য সাম্প্রদায়িক শক্তির কবর দেওয়ার জন্য যাকে দরকার তাকেই কাছে নেবে’। এর পাশাপাশি আব্বাস সিদ্দিকীর (Abbas Siddiqui) নাম না করে ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui) বলেন, ‘মেরুকরণ নয় উনি মানুষে মানুষে ভেদাভেদ তৈরি করছেন, সাম্প্রদায়িক দল যদি এই বাংলায় জায়গা পায় মানুষ কিন্তু আঙুল তুলবে ফুরফুরা শরিফের উপরে।

আরো পড়ুন : আসন বন্টন নিয়ে বাম-কংগ্রেস জোট এখনও অতলে

যে ফুরফুরা শরিফের জন্য সাম্প্রদায়িক শক্তি এই জায়গায় ক্ষমতা পেয়েছে। তা আজকে আর সেই জায়গা থাকবেনা। ২১-এর পর মানুষ ফুরফুরা শরিফের উপর আঙুল না তুলে ওনার উপর আঙুল তুলে কথা বলবে। এটা ভালো, আমরা এটাই চাইছিলাম’ বলেও মন্তব্য করেন পীরজাদা ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui)। তিনি কটাক্ষ করে আরও বলেন, ‘উনি মাঠে নামুন, উনি মাঠে নামলে খুব ভালো হয়। উনি খেলোয়ার হবেন, against-এ team থাকবে, লড়াইটা হবে, পীরসাহেব বলে পীরজাদা বলে তখন ওনাকে আর কেউ দেখবে না। ওনাকে একটা খেলোয়ার হিসেবে দেখবে। রাজনৈতিক নেতা হিসেবে দেখবে। এটা আমাদের জন্য অনেক মঙ্গল বলে আমি মনে করি’।

এইভাবেই নাম না করে আব্বাস সিদ্দিকীকে কটাক্ষ করেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদ ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui)। ফুরফুরা শরিফের কালো দিন ঘনিয়ে আসছে ? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui) বলেন, ‘কালো দিন ঘনিয়ে আসছে না। ২১ তারিখে উনি কালো একটা দাগ টানছেন।’ পাশাপাশি তার মন্তব্য ‘উনি কালো দাগটা দিলেন, সেই কালো দাগটা কিন্তু ওনার জন্যই হবে, ফুরফুরা শরিফ, পীর সাহেবদের জন্য হবেনা। আমাদের জন্য ওই দিনটা শুভ দিন হবে, আমরা স্পষ্ট হয়ে গেলাম বাংলার মানুষের কাছে স্পষ্ট হয়ে গেল যে ওনার আসল, মূল উদ্দেশ্যটা কী।’

ফুরফুরা শরিফের পীরজাদ ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui) আরও বলেন, ‘ভারতের দ্বিতীয় মুসলিম তীর্থভূমি ফুরফুরা শরিফ। কোন রাজনীতির পরিচয় দিয়ে এর পরিচিত নয়। ধর্মনীতির পরিচয় দিয়ে পরিচিত। এখানে হিন্দু, মুসলমান, শিখ, ঈশাই, সিপিএম, কংগ্রেস, তৃণমূল সবাই এখানে আসেন দুয়া নেবার জন্য আশীর্বাদ নেবার জন্য, এখানে সব ধরনের মানুষ আসে ভালোবাসা দিয়ে’। পাশাপাশি তার আরও মন্তব্য, ‘আর যখনই কোন রাজনীতির ব্যানারে আসবে তখন রাজনীতির লোকেরা তার কাছে যাবে’। এইভাবেই নাম না করে আব্বাস ও ওয়াইসিকে কটাক্ষ করতে ভোলেন না ফুরফুরা শরিফের পীরজাদ ত্বহা সিদ্দিকী (Toha Siddiqui)।