নবদ্বীপে বিসর্জনের অনুষ্ঠানে আনন্দের হাসি ভুলিয়ে দিল বিষাদ

।। প্রথম কলকাতা ।।

এবার নেই ভিড়ের দেখা। এইবছর মা দূর্গা একাই মর্তের মণ্ডপ থেকে কৈলাসে ফিরে যাচ্ছেন। দেবীকে বিদায় জানানোর আগে দেবী বরণ ও সিঁদুর খেলায় মাতলেন পুজো কমিটির মহিলা এবং গৃহবধূরা। স্থানীয় মানুষও এই আনন্দ অনুষ্ঠানে সামিল হন। তবে এবার করোনা পরিস্থিতিতে আদালতের নির্দেশ থাকায় দূরত্ব বিধি মেনে ঘরের মেয়ে উমাকে বিদায় জানাতে বিষণ্ণ মনে বরণ করলেন সকলে।

এদিন সকালে নির্ধারিত নিয়ম মেনে নবদ্বীপ রাম গোবিন্দ রোডের স্বামী বিবেকানন্দ ক্লাবের দুর্গা প্রতিমা বরণ করলেন পুরোহিত। তারপর একে একে হাইকোর্টের নির্দেশ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মায়ের পায়ে সিঁদুর ছোঁয়ান। নাকাশিপাড়া ব্লকের কদমতলা ধর্মদা যুব সংঘে পুজো কমিটির সদস্যা ও গৃহবধূরা সিদুর খেলায় অংশ নিলেন।

আরো পড়ুনঃ বাঁকুড়াতে করোনা বিধির কারণে বিষাদময় বিসর্জনের অনুষ্ঠান

তবে এবছর করোনা পরিস্থিতিতে পুজো মণ্ডপগুলিতে তেমন ভিড় ছিল না বলে জানিয়েছেন ক্লাবের কর্মকর্তারা। অন্যান্য বারের তুলনায় জনস্রোত বাড়েনি সেভাবে। প্রতিটি বারোয়ারী পুজোর কর্মকর্তারা খুবই সতর্ক ছিলেন। করোনা আবহে অনেকেই ঘরে বসে টিভিতে বা অনলাইনে পুজোর আনন্দ উপভোগ করেছেন। মানুষ সমস্ত রকম স্বাস্থ্যবিধি মেনে দূর থেকে প্রতিমা দর্শন করেছেন। কিছু মানুষ গাড়িতে বসেই প্রণাম ঠুকেছেন মায়ের উদ্দেশ্যে। সব মিলিয়ে সচেতনতার আবহে কেটেছে পুজো।

আজ বিদায় বেলায় সকলেই ভারাক্রান্ত। সকলের একটাই প্রার্থনা মা করোনা থেকে দেশবাসীকে রক্ষা করো। তবে এদিন অনেকেই দেখা গেল কোলাকুলি নয়,হাত জোড় করে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে। স্বাস্থ্য বিধি সম্পর্কে সমস্ত রকম সতর্কতা মানতে তারা প্রস্তুত। সচেতনতার এই দৃশ্য দেখে খুশি প্রশাসন থেকে বারোয়ারি পুজো কমিটি কর্তারা।

Categories