ফের দিল্লিতে তলব মুকুলকে,কেন? জানুন

।। রাজীব ঘোষ ।।

রাজ্য বিজেপি নেতা মুকুল রায় কলকাতায় ফেরার একদিনের মধ্যেই ফের তাকে দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ মুকুল রায়ের সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন বলে জানা গিয়েছে। সেই কারণে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের এর পক্ষ থেকে মুকুল রায়কে শুক্রবারের মধ্যেই দিল্লিতে যাওয়ার জন্য জানানো হয়। দিল্লিতে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে রাজ্যের নির্বাচন এবং সাংগঠনিক প্রস্তুতি নিয়ে রাজ্য বিজেপির নেতাদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক চলছে।

সেই বৈঠকে রাজ্য বিজেপির প্রায় সমস্ত সাংগঠনিক পদাধিকারীরা উপস্থিত রয়েছেন। প্রায় সপ্তাহব্যাপী এই বৈঠকে মুকুল রায় উপস্থিত ছিলেন। তবে শনিবার মুকুল রায় কলকাতায় ফিরে আসেন। তারপরে রাজ্য রাজনীতিতে জোর জল্পনা শুরু হয়ে যায়। কি কারণে দিল্লির গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক থেকে মুকুল রায় কলকাতায় চলে এলেন? তাহলে কি অন্য কোনো উদ্দেশ্য রয়েছে মুকুলের?

দীর্ঘদিন ধরে দলের ভিতরে গুরুত্বপূর্ণ কোনো পদ না পাওয়া এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় স্থান না পাওয়ার কারণে কি মুকুল রায় বিজেপিতে কোনো ভূমিকা গ্রহণ করছেন না। প্রশ্ন উঠতে শুরু করে রাজ্য রাজনীতিতে। তবে মুকুল রায় বিমানবন্দরে নেমে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান তিনি কলকাতায় তার চোখের চিকিৎসার জন্য ফিরে এসেছেন। এই বিষয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন মুকুল রায় চোখের চিকিৎসার জন্য কলকাতায় ফিরে যান।

করোনা পরিস্থিতিতে বয়সের কারণে তিনি শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে চুপচাপ থাকছেন। মুকুল রায়ের দিল্লির বৈঠক থেকে কলকাতায় ফিরে আসা এবং তার দিল্লির বাসভবন থেকে মোদী শাহের পোস্টার হোর্ডিং সরে যাওয়াকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়ে যায়। এই বিষয়ে মুকুল রায় বলেন বিজেপির সঙ্গে দূরত্ব নিয়ে যা রটানো হচ্ছে তার সবটাই বানানো এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত। সূত্রের খবর দিল্লিতে বৈঠক রাজ্য বিজেপির নেতারা বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির আসন পাওয়ার বিষয়ে পরিসংখ্যান দেন।

সেই পরিসংখ্যান নিয়ে মুকুল রায়ের সঙ্গে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের মতবিরোধ হয়। তারপর মুকুল রায় কলকাতায় ফিরে আসেন। তবে তিনি কলকাতায় পৌঁছানোর একদিনের মধ্যেই কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় মুকুল রায়কে জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তার সঙ্গে আলোচনা করতে চান। তিনি যেন শুক্রবার দিল্লিতে পৌঁছে যান।

জানা গিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় এবং রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে গিয়ে রাজ্যে মুকুল রায়ের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা করেন। তারপরেই অমিত শাহ মুকুল রায়ের সঙ্গে কথা বলতে চান। দিল্লির বৈঠক থেকে ফিরে আসার এক দিনের মধ্যেই ফের তাকে দিল্লিতে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের পক্ষ থেকে ডেকে পাঠানো যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।