Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

মোদি এবং মমতা একই মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ, ব্যাপক তোপ ওয়েইসির

1 min read


।। ময়ুখ বসু ।।


একুশে বাংলার ভোট বাজারে পা রেখেছে আসাদউদ্দিন ওয়েইসির দল মিম। বাংলার সাতটি আসনে ইতিমধ্যেই প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়েছে তারা। মূলত বাংলায় সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্ককে টার্গেটে রেখে সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকায় প্রার্থী দিয়েছে তারা।

এদিকে বিহারে ভালো ফল করার পরেই মিম বাংলায় পা রাখতে চলেছে এটা জেনেই মিমকে তীব্র আক্রমণ শানাতে শুরু করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে রাজ্যের একাধিক প্রচার মঞ্চ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মিম ও মিম প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েইসিকে তীব্র আক্রমণ করেন।

মমতা মিমকে হায়দারাবাদের বহিরাগত পার্টি বলেও আক্রমণ করেছেন। একইসঙ্গে তিনি মিমকে বিজেপির বি-টিম বলে দাবি করে জানান, বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে রাজ্যে মুসলিম ভোট ভাগ করে নিতে চাইছে মিম। বিজেপির কাছ থেকে টাকা নিয়ে তারা বাংলায় মুসলিম ভোট ভাগ করতে এসেছে বলেও অভিযোগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এবারে ভোটের ময়দানে দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাল্টা দিলেন মিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি।

তিনি বলেছেন, যিনি মুসলিমদের কথা ভাবেন বলে দাবি করেছেন তিনি কেন গুজরাত দাঙ্গার সময় একটিবারও মুখ খোলেননি? ২০০২ সালে গুজরাত দাঙ্গার সময় মুখে কুলুপ এঁটে বসেছিলেন কেন? ওয়েইসি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মন্ত্রিত্ব দিয়েছিল বিজেপি সরকার। তিনি বিজেপি সরকারের হয়ে মন্ত্রী হয়েছিলেন।

২০০৪ সালে বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভোটে দাঁড়িয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনিই প্রথম বাংলার মাটিতে বিজেপির পথকে প্রশস্ত করে দিয়েছিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরেই বাংলায় বিজেপি পা রেখে ধীরে ধীরে শক্তি বৃদ্ধি করে।

আর এখন মিমকে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই বিজেপির বি-টিম বলছেন! যা অত্যন্ত হাস্যকর বলেও মন্তব্য করেন ওয়েইসি। ওয়েইসি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি আক্রমণ করে বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলায় মুসলিমদের জন্য কিছু করেননি। বাংলার মুসলিমদের জন্য কোনও কথা ভাবেননি। মমতার পার্টি তৃণমূল কংগ্রেস বাংলার মুসলিমদের কেবলমাত্র ভোটব্যাঙ্ক হিসাবে ব্যাবহার করেছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রচার সভায় গিয়ে যে কলাম পড়েন সেটা কেবলমাত্র ভাঁওতা দেওয়ার জন্য। মোদি এবং মমতা একই মুদ্রার এপিঠ আর ওপিঠ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

পিসিসি