ক্ষমতা ধরে রাখতে আঞ্চলিকতাবাদকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন মমতা:রন্তিদেব

।। রাজীব ঘোষ ।।

আমরা সবাই ভারতবাসী,এখানে এক প্রদেশের মানুষকে অন্য প্রদেশে গেলে বহিরাগত বলতে পারি না।এই ধরনের মানসিকতাকে আঞ্চলিকতাবাদ বলি।যদি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লিতে যান,সেখানকার মানুষেরা যদি বলেন বাংলার মুখ‍্যমন্ত্রীকে ঢুকতে দেবো না।এটা কখনোই কাম‍্য হবে না।এই কথা বললেন বিজেপি নেতা রন্তিদেব সেনগুপ্ত।

একুশে জুলাইয়ের ভার্চুয়াল সভায় মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, বহিরাগতরা বাংলা শাসন করবে না।বাংলাকে শাসন করবে বাংলার মানুষ।গুজরাট বাংলা শাসন করবে না।আজ একুশের সমাবেশ থেকে শপথ নিন,একুশের ভোটে বিজেপির জামানত বাজেয়াপ্ত করে বাংলায় বাংলার মানুষের শাসন নিশ্চিত করুন।

মমতা আরও বলেন, গুজরাট কি সব রাজ‍্যকে শাসন করবে।তাহলে আর নির্বাচন কমিশন থাকার দরকার কী।তুলে দিন।একটা দেশ একটা রাজনৈতিক দল থাকুক।মমতাকে উদ্দেশ্য করে বিজেপি নেতা রন্তিদেব সেনগুপ্ত বলেন, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি জয়ী হলে পশ্চিমবঙ্গের মুখ তারাই সরকার গড়বেন।অন্য রাজ‍্য থেকে কাউকে এনে মুখ‍্যমন্ত্রী করা হবে না।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সেটা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

বিজেপি তাদের লোক নিয়ে সরকার গড়বে।অন্য রাজ‍্য থেকে কেউ এলে তাকে বহিরাগত তকমা দিয়ে দেবো এটা ঠিক নয়।এইসব কথা বলে আঞ্চলিকতাবাদকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন।এতদিন উগ্র মুসলমানকে প্রশ্রয় দিয়েছেন, এখন ক্ষমতা ধরে রাখতে আঞ্চলিকতাবাদকে প্রশ্রয় দিতে চাইছেন।প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, রাজ‍্যের ক্ষমতা ধরে রাখতে কি আঞ্চলিকতাবাদের আশ্রয় নিতে চলেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়?