রাজ্যের শাসক দলের নতুন ক্যাম্পেন, বিজেপির চ্যালেঞ্জ

1 min read

।। স্বর্ণালী তালুকদার ।। কলকাতা ।।

বিজেপি অতিমারী এমনটাই বলেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অমোঘবানীকেই হাতিয়ার করেই রাজ্যের শাসকদল নতুন নির্বাচনী প্রচার শুরু করেছেন। যেমন করে বিপর্যয় হলে কত মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হন, কতজন মানুষ বিপর্যয় থেকে সুরক্ষিত থাকতে পেরেছেন, একেবারে সেই পদ্ধতিতেই চলছে প্রচার। শাসকদলের তরফে স্লোগানেও সেই সুর স্পষ্ট। “নিজেকে বিজেপির থেকে সুরক্ষিত চিহ্নিত করুন” এই মন্ত্রেই রেজিস্টার করিয়ে প্রাক ভোট জনমত তৈরি করার দায়িত্বে রয়েছেন প্রশান্ত কিশোরের দল আইপ্যাক।

পরিযায়ী শ্রমিক, দলিত নিগ্রহ, দাঙ্গার মত ইস্যুগুলোকেই তুলে ধরা হয়েছে এই প্রচারের মাধ্যমে। শাসকদলের শীর্ষ নেতা জানিয়েছেন বিজেপির বিরোধিতা কতটা প্রকট, সেটা যেমন জানা যাবে, অন্যদিকে বিজেপির হাতে কতজন অত্যাচারিত কিনা, সেই বিষয়ে জানা যাবে। এমনকী, সমগ্র বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনকে সতর্ক করা সম্ভব।

আরো পড়ুনঃ অনেক দেরি হয়ে গেছে, বিমল গুরংকে কটাক্ষ মুকুলের

প্রকাশ্যে বিজেপির বিরোধিতা যতটা প্রকট, তার থেকেই বেশি চুপিসারে মতামাত দেওয়ার ভাবনায় বিশ্বাসী বহু মানুষ। এই মানসিকতাকে মাথায় রেখে সুযোগ দিচ্ছে তৃণমূল, রেজিস্টার করে নিয়ে প্রত্যেকেই নিজের মতামত ব্যক্ত করতে পারবেন। ‘বাংলার গর্ব মমতা’, ‘দিদিকে বলো’ সোশ্যাল মিডিয়ার পেজগুলিতে ক্রমাগত বিজেপি বিরোধী প্রচার চলছে দলের তরফে।

বছর ঘুরলেই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে তোড়জোড় বাড়বে কয়েক গুনে। যদিও নির্বাচনের দামামা বেজে গেছে ইতিমধ্যেই। একদিকে যেমন বিজেপি থেকে রদবদল হচ্ছে উল্লেখযোগ্য নেতাদের। অন্যদিকে তৃুনমূল থেকে স্থানীয় থেকে হাই বাজেট – সকল নেতারাই বিজেপি দলে যোগ দিচ্ছেন বিনা ভূমিকায়। পালা বদল কতটা সময় পর্যন্ত চলবে, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে বিশেষজ্ঞদের। তবে প্রচারে খামতি রাখতে চান না শাসক দল। 

Categories