ভিনদেশী মেয়ে

।। হুমায়ূন কবীর ।।

ভিনদেশী তুমি সুহাসিনী 

দীঘল কেশী মেয়ে,

বানের জলে ভেসে ভেসে

আসছো ডিঙি নায়ে।

কথায় কথায় মুশকি হাঁসো

পড়ছে টোল গালে,

হরিনী চোখে খুঁজছো কাকে

নদীর কূলে কূলে?

কোকিলা কন্ঠে বলছো কথা

লাস্যময়ী মেয়ে,

তোমায় দেখে বড়শী হারালাম

মাছে গেলো নিয়ে।

যৌবনে ভরা তটনী তুমি

সুডৌল অঙ্গে ঢেউ,

মায়াবী সুরে হৃদয় ঘায়েল

আগে করেনি কেউ।

খোলা চুল হাওয়ায় দুলে

ওড়নায় পতাকা উড়ে,

জানার ইচ্ছে হয় গো কন্যা

থাকো কার নীড়ে? 

ডিঙির মাস্তুলে বসে কন্যা

বারে বারে তাকায়, 

বুকে মোর ইঁদুরের পাল

ডুগডুগি বাজায়।

হঠাৎ করে মিষ্টি মেয়ে

হাত ইশারায় ডাকে,

মুশকি হেঁসে আমায় বলে

চেনা লাগে তোমাকে।

করো কি তুমি? কোথায় বাড়ি

তোমার নাম কি?

যাত্রা পথে আমার সাথে

সঙ্গী হবে নাকি?

বোবা হয়ে রইলাম চেয়ে

মুখে ঝিলিক হাসি,

ইচ্ছে দানা রং মেখেছে

যেতে খুশি খুশি।