রাজনীতির সঙ্গে ধর্মটাকে মেশাতে গিয়ে সমাজটা অন্যরকম হয়ে যাচ্ছে, বললেন কুনাল

1 min read

।। রাজীব ঘোষ ।।

একসঙ্গে আমরা হিন্দু-মুসলমান বন্ধুরা থাকছি। রাজনীতি আর সমাজের মধ্যে ধর্মকে যেভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে পরিবেশটা কিরকম ধরনের হয়ে যাচ্ছে। রাজনীতিতে বিভিন্ন দলের মতামত থাকতে পারে। ধর্মটাকে মেশাতে গিয়ে সমাজটা অন্যরকম হয়ে যাচ্ছে। এটা বাঞ্ছনীয় নয়। প্রথম কলকাতায় সাক্ষাৎকারে বললেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ।

এরপর তিনি রাজা রামমোহন রায় ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিষয়টি তুলে ধরেন। জয় শ্রীরাম বললে যদি চাকরি ফিরে পাওয়া যায় জিনিসপত্রের দাম কমে যায় তবে সেটা বলতে রাজি আছি। বিজেপি রাজনৈতিক দল হিসেবে রাজনীতি করুক। তার সঙ্গে ধর্ম মেশানো হচ্ছে কেন বলেন কুনাল। সমস্ত ধর্মের মানুষ একসঙ্গে বসবাস করি।

একটা বিভাজন তৈরী করার চেষ্টা হচ্ছে। একটা অবিশ্বাসের বাতাবরণ তৈরি হচ্ছে। এই পরিস্থিতি টা যাতে না তৈরি হয় সেদিকে লক্ষ্য দিতে হবে। এরপর তিনি সাংবাদিক হিসেবে রাজ্য বিজেপির সভাপতির প্রসঙ্গে বলেন তপন সিকদার ছিলেন সব থেকে বেশি অ্যাকটিভ। এরকম সভাপতি রাজ্য বিজেপি পায়নি। এখন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের উপর অতৃপ্ত আত্মার কুনজর পড়েছে। তার কথায় রাজ্য বিজেপির এখন উচিত সরকারের বিরোধিতা কিভাবে করতে হবে তার জন্য ওয়ার্কশপ করা।

কারণ সেটাও তারা জানেন না। বিরোধী আন্দোলন কিভাবে করতে হয় সেটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেখিয়েছেন। আর মুখ্যমন্ত্রী হবার পর রাজ্যের সমস্ত মানুষকে সামাজিক কর্মসূচির মাধ্যমে উপভোক্তার সুবিধা পাইয়ে দিয়েছেন। এক্ষেত্রে বিরোধীদের বিপুল ঘাটতি রয়েছে। যদি তৃণমূলের কোনো ভুল কে চর্চা করে মানুষের সমর্থনে কাজে লাগানোর চেষ্টা করেন তাহলে সেটা বিরোধীদের রাজনৈতিক দেউলিয়াপনা। এরপরে তিনি ডিজিটাল মিডিয়ার ভূমিকার কথা তুলে ধরেন।