Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

কমিশনের কড়া চাওনি, ১১ আসনে নির্বিঘ্নে ভোট করতে প্রস্তুত কলকাতা পুলিশ

।। প্রথম কলকাতা ।।

২৬ ও ২৯ এপ্রিল শেষ দুটি পর্যায়ে কলকাতার ১১ আসনে নির্বাচন হতে চলেছে। প্রথম দিনে ৪ এবং দ্বিতীয় দিনে ৭টি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ হবে। সেই উপলক্ষে যাবতীয় প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে লালবাজার। বহু সময় দেখা গিয়েছে নির্বাচনের আগে কলকাতা পুলিশের একাংশের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্ব মূলক কার্যকলাপের অভিযোগ তোলে বিরোধীরা। কিন্তু গত বিধানসভা নির্বাচনে দেখা গিয়েছে নজিরবিহীন নিরাপত্তায় কলকাতার ভোট হয়েছে।

তখন সিপি ছিলেন সৌমেন মিত্র। এবারেও কলকাতার পুলিশ কমিশনার হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন তিনি। চলতি বছরেই অবসর নিচ্ছেন সৌমেন। অত্যন্ত দক্ষ অফিসার হিসেবে বহুদিন ধরেই তাঁর পরিচিতি রয়েছে। তাই অবসরের আগে কলকাতা বিধানসভা কেন্দ্রগুলিতে শান্তিপূর্ণভাবে যাতে ভোট হয়, তাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছেন তিনি।

এই বিষয়ে কলকাতা পুলিশের এক আধিকারিক বলেন, ” এবারে আমাদের যেভাবে পুলিশকর্মীদের ডিউটি দিতে হচ্ছে, তা অতীতে হয়নি। বুথে কারা থাকবেন সেই নামগুলি জানা যাচ্ছে কমিশনের কাছ থেকে ঠিক দু’দিন আগে। সমস্ত পুলিশকর্মীদের নামের তালিকা সেখানে পাঠানো আছে। কমিশন জানিয়ে দিচ্ছে কোন কোন বুথে কারা থাকবেন, সেই অনুযায়ী আমরা তাঁদের ডিউটিতে পাঠাচ্ছি। পুলিশকর্মীরা পোস্টাল ব্যালট সংগ্রহ করছেন ভিডিওগ্রাফির আওতায় থেকে।”

আরো পড়ুন : হুইলচেয়ারেবসেই নববর্ষে রোড শো মমতার,অংশ নিলেন জয়া বচ্চনও

অর্থাৎ ডিউটি দেওয়ার ক্ষেত্রে লালবাজারকে তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে কমিশনের দিকে। আর লালবাজার তাদের নির্দেশ মানছে কিনা সেদিকে কমিশনের কড়া চাওনি রয়েছে। আর রাজ্য পুলিশ এলাকায় যেভাবে ভোট হয়েছে, কলকাততেও সেটাই হবে। লাঠিধারী পুলিশকর্মীরা মূলত লাইন সামলানোর কাজে থাকবেন। বুথের সামনে থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনী।

যে সমস্ত এলাকায় কলকাতা পুলিশকে কড়া চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে সেগুলি হল, বেলেঘাটা, এন্টালি এবং বন্দর বিধানসভা কেন্দ্রের অধিকাংশ বুথ। এই বিষয়ে কলকাতা পুলিশের ওই আধিকারিক বলেন, মেটিয়াবুরুজে নির্বাচন হয়েছে। কিন্তু বড় গন্ডগোল হয়নি। বেহালাতেও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হয়েছে।

তাই আমরা আশাবাদী খাস কলকাতায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হবে। ইতিমধ্যেই নির্বাচনে নামার জন্য পুরোপুরি তৈরি লালবাজার। তবে সকলেই চিন্তায় রয়েছেন বেলাগাম করোনা পরিস্থিতি নিয়ে। কোভিড বিধি পুরোপুরি মেনে কীভাবে নির্বাচন পরিচালনা করা যায়, সেদিকেই নজর লালবাজারের।