Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

মালদায় গুলি চালানোর ঘটনায় দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি খগেন মুর্মুর

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

আবারও গুলি চালানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মালদার সামসি এলাকা। গুলিবিদ্ধ হন বিজেপির সংখ্যালঘু সভাপতি সাবেক আলি। অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে। এবার, ১৮ নং মালদা জেলা পরিষদের বিজেপির ( bjp)খ্যালঘু সভাপতির গাড়ি লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালানোর ঘটনায় দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানালেন উত্তর মালদা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু (Khagen Murmu)। প্রসঙ্গত, রবিবার গভীর রাতে সামসি থেকে বাড়ি ফেরার পথে বিজেপির সংখ্যালঘু সভাপতি সাবেক আলির গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধ হন বিজেপির সংখ্যালঘু সভাপতি সাবেক আলি।

অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল কংগ্রেস (tmc)। হাসপাতাল সূত্রে খবর, সাবেক আলির বাঁ হাত এবং পায়ে গুলি লেগেছে। জানা যায়, রবিবার রাতে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় গ্রামীণ হাসপাতাল এবং পরে তাকে স্থানান্তরিত করা হয় মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে। এরপর সোমবার সকাল এগারোটা নাগাদ চিকিৎসাধীন গুলিবিদ্ধ বিজেপি নেতা সাবেক আলিকে দেখতে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে যান উত্তর মালদা কেন্দ্রের সাংসদ খগেন মুর্মু।

আরো পড়ুন : মিছিলে গেলেন না শোভন-বৈশাখী, শুরুতেই ছন্দপতন!


তিনি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করার পাশাপাশি তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগও তুলেছেন। দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন তিনি। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভানেত্রী মৌসম নূর। বিজেপির নিজেদের গণ্ডগোলের জেরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানান তিনি।
মৌসম নূর বলেন, ‘এটা পুরোপুরি মিথ্যা অভিযোগ। নিজেদেরই গোষ্ঠীকোন্দল হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন পুরো বিষয়টি দেখছে আইনগতভাবে যা হবে আমরা সকলে মানব।’ পাশাপাশি তার মন্তব্য ‘তাদের নিজেদের মধ্যে যখনই গন্ডগোল হয় তারা তৃণমূলের ভালো ভালো নেতা কর্মীদের নামে মিথ্যা অভযোগ করে।

কিন্তু তাদের নিজের সমস্যা তারা সমাধান করতে পারছেন না’ বলেও অভিযোগ করেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভানেত্রী মৌসম নূর। প্রসঙ্গত, রবিবারের এই ঘটনায় বিজেপির অভিযোগ ওই এলাকা থেকে নির্বাচিত জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ শামসুল হক এবং স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সেলিনা বিবি এলাকার তৃণমূল নেতা মহব্বত আলির নেতৃত্বে এই ধরনের ঘটনা ঘটানো হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা না হলে অবিলম্বে তারা আন্দোলনে নামবে বলেও জেলা বিজেপির তরফে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। পুখুরিয়া থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। অভিযুক্তরা পলাতক।