শুরুর আগেই চাপে আইপিএল ফ্রান্ঞ্চাইজিরা,শুরুর আগেই সরছে স্পনসররা

।। শুভব্রত মুখার্জি ।।

আইপিএল শুরু হলে আর্থিক দিক থেকেও লাভবান হবে ক্রিকেটার এবং ভারতীয় বোর্ড উভয়েই। রাজ্য ক্রিকেট সংস্থা, ব্রডকাস্টার কোম্পানির সঙ্গে জড়িয়ে থাকা মানুষের ও আয়ের পথ খুলে যাবে। তাই ১৯ সেপ্টেম্বরের দিকে তাকিয়ে অনেকে। আইপিএল শুরু হলে অনেকের অনেক কিছুর সমাধান হবে।কিন্তু দেশে চার মাসের লকডাউনে অনেক প্রশ্ন উঠে গিয়েছে।

বহু মানুষের চাকরি গিয়েছে। যাদের চাকরি রয়েছে তাদের ও বেতন অর্ধেক হয়ে গিয়েছে। ব্যবসায়ীদের অবস্থা ও তথৈবচ। সর্বত্রই টাকার খুব অভাব। এর আঁচ লেগেছে ক্রিকেটে ও। আইপিএলের দিন ঠিক হওয়ার পর থেকে খবর আসছে স্পনসররা আইপিএল থেকে সরে যাচ্ছেন। লকডাউনে দেশের অনেক ব্যবসায়ী ব্যবসা করে তেমন লাভ করতে পারেননি।

লকডাউন শুরু হতেই সব ওলটপালট হয়ে যায়‌। আইসিসি টি ২০ বিশ্বকাপ বাতিল করতেই আইপিএলের দরজা খুলে যায়। কিন্তু সময় কম থাকায় এর মধ্যে ফ্রাঞ্চাইজিরা কীভাবে টাকা নিয়ে আসবেন তা নিয়ে চিন্তা বাড়ে। প্রথমেই সরে যেতে পারে সিকো। কারন ব্যবসার ক্ষতি। বিশ্বে তাদের কোনও প্রোডাক্ট বিক্রি হয়নি।

তাই তারা আইপিএল থেকে নিজেদের সরিয়ে নেওয়ার কথা বলছে। এরপর তালিকায় রয়েছে লিংক. খাদিম, ডি ভ্যালি। এর মধ্যে কেকেআরের তিনটি স্পনসর। রাজস্থান রয়্যালস, হায়দ্রাবাদ সানরাইজার্সের অবস্থাও এক। টাইটেল স্পনসরও আগ্রহ দেখাচ্ছে না। সবমিলিয়ে বেশ চাপে ফ্রান্ঞ্চাইজিগুলো।