Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘২০ – ৩০ হাজার ভোটে লিড দেব’, জানিয়ে দিলেন তনুশ্রী

।। শর্মিলা মিত্র ।।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের দিনই গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছিলেন তিনি। অভিনয় জগত থেকে রাজনীতির ময়দানে নাম লেখানোর পরই ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থীও হয়েছেন তিনি। গেরুয়া মন্ত্রে দীক্ষিত হওয়ার পর হাওড়ার শ্যামপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভারতীয জনতা পার্টির প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তী৷

মঙ্গলবার তৃতীয় দফার ভোটের দিন ভোট গ্রহণ হতে চলেছে এই কেন্দ্রে। এই এলাকা তৃণমূলের গড় হিসেবেই পরিচিত। তবে, লোকসভা নির্বাচনের নীরিখে তৃণমূল ব্যবধান বাড়িয়েছে। উল্লেখযোগ্যভাবে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বিজেপি। সেক্ষেত্রে এই কেন্দ্রে কঠিন দ্বিমুখী লড়াই হবে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। অন্যদিকে, প্রচারের শেষ লগ্নে আত্মবিশ্বাসী পদ্ম শিবিরের প্রার্থীও। জেতার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী তনুশ্রী জানান, তিনিই জিতছেনই৷ কমপক্ষে ২০ থেকে ৩০ হাজার ভোটে লিড দেবেন তিনি বলে জানান শ্যামপুর বিধানসভা কেন্দ্রের ভারতীয জনতা পার্টির প্রার্থী অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তী৷

প্রসঙ্গত, প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই নিজের বিধানসভা কেন্দ্রে গিয়ে কার্যত আদা জল খেয়ে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছিলেন তনুশ্রী চক্রবর্তী। প্রার্থী হওয়ার পরই এই তারকাপ্রার্থী বলেছিলেন, তিনি কথায় নন, কাজে বিশ্বাসী। সেইমত শুরু থেকেই জনসংযোগে এতটুকু খামতি রাখেন নি তিনি। গ্রামের বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে গিয়েছিলেন এই টলিউড নায়িকা। মিশে গিয়েছিলেন আট থেকে আশির সকলের সঙ্গেই। আর এরপরই ভোট প্রচারের একদম শেষ পর্বে তিনি জানান, এখানকার মানুষের মুখের ভাষা বলে দিচ্ছে আমরা জিতছি৷ কমপক্ষে ২০ থেকে ৩০ হাজার ভোটে লিড দেব আমি৷

আরো পড়ুন : বিজেপির প্রেসার ট্যাকটিকস কাজ করবে না, নন্দীগ্রামে জিতবেন মমতাই

অন্যদিকে, শ্যামপুর বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের ‘তুরুপের তাস’ তাদের চারবারের বিধায়ক কালীপদ মণ্ডল। এবারও তৃণমূল কংগ্রেস আস্থা রেখেছে কালীপদ মণ্ডলের উপরই। প্রতিপক্ষ হেভিওয়েট প্রার্থীর সম্পর্কে তনুশ্রী চক্রবর্তী জানান, দল তাঁর উপর বিশ্বাস করেছে৷ কিছু ভেবেই দিয়েছে৷ শ্যামপুরবাসী এবার আসল পরিবর্তন চাইছে, বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, আমার জায়গায় বিজেপির অন্য কেউ দাঁড়ালে তিনিও জিততেন।

পাশাপাশি দোলের দিন গঙ্গাবক্ষে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মদন মিত্রর সঙ্গে তাঁদের দোল খেলা নিয়ে যে সমালোচনা সামনে এসেছে। তনুশ্রীর মন্তব্য, ওটা একটা অরাজনৈতিক মঞ্চ ছিল৷ পার্টির অনুমতি নিয়েই তাঁরা গিয়েছিলেন বলেও জানান তনুশ্রী।

একই সঙ্গে তনুশ্রী চক্রবর্তী আরও জানান তিনি জিতলে প্রথমে একটি সুপার স্পেশ্যালিটি হসপিটাল করবেন এবং গাদিয়ারা পর্যটন কেন্দ্রের উন্নয়ন করবেন বলেও জানান শ্যামপুর বিধানসভা কেন্দ্রের ভারতীয জনতা পার্টির প্রার্থী অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তী৷