গাঁজা কেস দিয়ে দেব, শুভেন্দু অনুগামীদের ভয় দেখানোর অভিযোগ

1 min read

।। কুমার মিত্র ।।

কয়েকদিন আগেই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেছিলেন এবার শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীদের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে নানা মামলা করা হবে। তাদের বিরুদ্ধে গাঁজা বা অন্যান্য মাদক দ্রব্য রাখার দায়ে কেস দিয়ে দেওয়া হবে। এবার ঠিক তেমন আশঙ্কাই করছেন শুভেন্দু অনুগামীরা। ইতিমধ্যেই শুভেন্দু অনুগামী কয়েকজন তৃণমূল নেতার ব্যক্তিগত দেহরক্ষী সরিয়ে নিয়েছে রাজ্য প্রশাসন।

তারপরেই শুভেন্দু অনুগামীদের একাংশ অভিযোগ করেছেন যে, পুলিশ তাঁদের বিরুদ্ধে গাঁজা কেস দিয়ে দেওয়ার হুমকি দেখাচ্ছে। যদিও বিষয়টি নিয়ে তাঁদের নাম এখনো প্রকাশ্যে আসেনি। মুর্শিদাবাদে বেশ কয়েকজন শুভেন্দু অনুগামী এই কেসের ভয়ে যথেষ্ট আতঙ্কে রয়েছেন বলে খবর। কারণ তাঁরা জানেন কংগ্রেস কর্মীদের কিভাবে হেনস্থা করা হয়েছিল এই জেলায়। উল্লেখ্য সেই সময় বহরমপুরের সাংসদ কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরীর অনুগামীদের পুলিশ-প্রশাসন অন্যায় ভাবে, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে গাঁজা কেস দিয়ে জেলে পুরেছিল বলে অভিযোগ করেছিলেন অধীর।

সেই ঘটনার কথা তুলে ধরে অধীরবাবু কয়েকদিন আগে বলেছিলেন যে এবার হয়তো শুভেন্দু অনুগামীদের বিরুদ্ধেও জোর করে গাঁজা কেস দিয়ে দেবে বিভিন্ন জেলার পুলিশ প্রশাসন। তবে বাস্তবে কি সেটাই শুরু হয়ে গিয়েছে? যদিও সরকারিভাবে এখনো পর্যন্ত তেমন ধরনের কেস দেওয়ার বিষয় সামনে আসেনি। কিন্তু শুভেন্দু অনুগামীদের অনেকেই বলছেন তাঁদের ওপর এমন কেস দিয়ে দেওয়ার হুমকি আসছে স্থানীয় থানা থেকে।

যেহেতু তাঁরা এখন তৃণমূলেই আছেন, তাই সরাসরি নাম প্রকাশে অসুবিধা আছে তাঁদের। যদি তাঁদের এই অভিযোগ সত্যি হয় তাহলে তো মনে করতে হবে তৃণমূল নেতৃত্ব কতটা আতঙ্কে রয়েছেন শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে।যেভাবেই হোক না কেন শুভেন্দুকে তৃণমূল ধরে রাখতে কতটা মরিয়া তা এই ধরণের অভিযোগ থেকেই পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে।

বিরোধীরা এই বিষয়টিকে সরকারের নোংরা খেলা বলেই উল্লেখ করছেন। কারণ সরকারে আসার পর তৃণমূলের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ বহুবার করেছেন কংগ্রেস এবং বাম দলের নেতারা। এবার দলের নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীদের যেভাবে কেস দিয়ে দেওয়ার ভয় দেখানো হচ্ছে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলে অভিযোগ এসেছে, তাতে তৃণমূলের ভাবমূর্তি জনমানসে আরো যে ধাক্কা খাবে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

Categories