আমি হুমায়ূনকে কথা দিয়েছিলাম ; নাসির উদ্দীন ইউসুফ

।। প্রথম কলকাতা ।।

হুমায়ূন আহমেদের ৮ম প্রয়াণ দিবসে ম্যাড থেটারের ভার্চুয়াল আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে নাসির উদ্দীন ইউসুফ জানালেন হুমায়ূনকে নিয়ে তাঁর একটি স্বপ্নের কথা, বললেন আমি মিসির আলীকে নিয়ে একটি সিনেমা করব বলে হুমায়ূন কথা দিয়েছিলাম। কিন্তু হুমায়ূনের আকস্মিক মৃত্যুর ফলে সেই স্বপ্ন আর পূরণ করা সম্ভব হয়নি। ম্যাড থেটারের ‘ভালোবাসি হুমায়ূন’ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে বিশিষ্ট নাট্য নির্দেশক ও আইটিআই বাংলাদেশ কেন্দ্রে সভাপতি নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, ১৯৭৩ সালে হুমায়ূন আহমেদের সাথে তাঁর পরিচয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শরীফ মিয়ার আড্ডায় যেখানে আড্ডা দিতে আসতেন নির্মলেন্দু গুণ, সেলিম আল দীন, সরওয়ার ভাই, রফিকুন্নবী, কবি শামসুর রাহমান, সাফদার সিদ্দিকী। হুমায়ূন আহমেদ নাসির উদ্দীন ইউসুফের চেয়ে দুই বছরের সিনিয়র ছিলেন। নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, আমি তার গুণমুগ্ধ ছিলাম। তিনি তাঁর সময়ে দাঁড়িয়ে মধ্যবিত্তের জীবনটা উন্মোচন করেছেন।  তিনি আমার মঞ্চ নাটকের সমালোচনাও করতেন। তরুণ ও যুবকদের পাঠাভ্যাস গড়ে তুলেছিলেন। প্রচুর পাঠক তৈরি করেছেন, বইয়ের ইন্ডাস্ট্রি দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন।

সিঙ্গাপুর যাওয়ার ৪৮ ঘন্টা আগে হুমায়ূনের সাথে ৩ ঘন্টার আড্ডা হয়। সেখানে আমার ছবি গেরিলা নিয়ে কথা বলেন হুমায়ূন। সেই আড্ডাতে হুমায়ূনকে কথা দিয়েছিলাম, আমি মিসির আলীকে নিয়ে একটি ছবি করব, কিন্তু যা লিখেছেন সেটা নয়। মিসির আলীকে নিয়ে আপনি নতুন একটা স্ক্রিপ্ট করবেন যেটা আমি ছবি করব। হুমায়ূন রাজি হলেন এবং বললেন তাহলে কথা ঠিক হয়ে গেল। হুমায়ূন বললেন আমার খুব শখ, আপনার হাত দিয়ে আমার একটা ভালো চলচ্চিত্র নির্মিত হোক। নাসির উদ্দীন ইউসুফ বললেন, আমিও স্বপ্ন দেখলাম হুমায়ূন আহমেদের একটা গল্প উপন্যাস নিয়ে আমি একটা ছবি করব এবং হুমায়ূনকে বললাম আপনি ফিরে আসেন। হুমায়ূন ভাইয়ের সাথে সেই শেষ দেখা এরপর তো তিনি অসুস্থ হলেন এবং আমাদেরকে ছেড়ে চলে গেলেন। তিনি আর ফিরে আসলেন না। হুমায়ূন আহমেদ একজন সফল মানুষ। সফল মানুষদের জীবন সবসময় উদযাপিত হয়। হুমায়ূন ভাই সেরকমই একজন মানুষ, তিনি প্রতিদিনই উদযাপিত হন।

১৯ জুলাই রাতে, ম্যাড থেটারের ‘ভালোবাসি হুমায়ূন’ অনুষ্ঠানে আরও অংশগ্রহণ বহুবচনের প্রধান তৌফিকুর রহমান, কবি সাখাওয়াৎ টিপু, নাট্যকার রুমা মোদক, বিশিষ্ট বাচিক শিল্পী ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক হাসান আরিফ, অন্যপ্রকাশের কর্ণধার ও লেখক মাজহারুল ইসলাম, বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক আফসানা বেগম। অনুষ্ঠানে হুমায়ূন স্মরণে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন সুবচন নাট্য সংসদের সদস্য আমিরুল ইসলাম বাবুল।

ম্যাড থেটার বিগত বছরগুলোতে ঢাকার শিল্পকলা একাডেমিতে হুমায়ূন আহমেদের জন্ম ও প্রয়াণ দিবস পালন করে আসছে এবং ঐদিন পরিবেশিত হয় ম্যাড থেটারের সাড়া জাগানো মঞ্চ নাটক ‘নদ্দিম নতিম’। নাটকটি হুমায়ূন আহমেদের কালজয়ী উপন্যাস ‘কে কথা কয়’ অবলম্বনে রচিত। রচনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন আসাদুল ইসলাম। এ যাবত নাটকটির প্রদর্শনীর সংখ্যা ৫৬। নাটকটি দেশ বিদেশে বিপুলভাবে প্রশংসিত। এবছর ক্রান্তিকালে ম্যাড থেটার হুমায়ূনের প্রয়াণ দিবস পালন করল ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে।